ঢাকা , বৃহস্পতিবার, ২০ জুন ২০২৪, ৬ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

পাইকগাছা-কয়রা খুলনা (০৬) আসন থেকে নৌকা টিকিট নিয়ে নির্বাচন করতে সাংবাদিকের সাথে মতবিনিময়

  • ডেস্ক :
  • আপডেট সময় ০৭:০০ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৪ অক্টোবর ২০২৩
  • 178

আব্দুল মজিদ পাইকগাছা প্রতিনিধি : তৃনমূল থেকে উঠে আসা সৎ,পরীক্ষীত,কর্মঠ,এবং কয়রার  দক্ষ উপজেলা চেয়ারম্যান পাইকগাছা কয়রার জাতীয় সংসদ সদস্য প্রাথী হয়ে নৌকার মনোয়ন চান এসএম শফিকুল ইসলাম খুলনার পাইকগাছা আইনজীবী ভবনে বিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। কয়রা-উপজেলার সূযোগ্য চেয়ার ম্যান জনাব শফিকুল  ইসলাম শফিক কয়রা থেকে প্রায় ৫শতাধিক মোটর সাইকেল শোভা যাত্রা নিয়ে পাইকগাছা আইনজীবী  ভবনে আসেন সূধী সমাজ ও সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময়ের জন্য।এসময় তার সফর সঙী হিসাবে প্রায় দেড় হাজারের ও অধিক নেতাকর্মী উপস্হিত ছিলেন। পাইকগাছা আইনজীবী ভবনে পাইকগাছা কয়রার সাংবাদিক,ব্যবসায়ী,শ্রমিক,মেহনতী জনগনের সামনে ,আইনজীবী  ভবনে আগামী দিনের দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে পাইকগাছা কয়রা গড়ার স্বপ্ন নিয়ে সংসদ সদস্য প্রাথী হয়ে নৌকার মনোয়ন প্রত্যাশি ঘোষনা করেন।

তিনি বলেন,আমি কয়রা সদর ইউনিয়ন থেকে পর পর দুই দুইবার নির্বাচিত চেয়ারময়ান। কয়রা থেকে  বিগত উপজেলা  নির্বাচনে উপজেলা চেয়ারম্যান মনোয়ন প্রত্যাশি ছিলাম।দল থেকে মনোয়ন না পেয়েও  আমি জনগনের চাপে দলের সিদ্বান্তের বাইরে গিয়ে নির্বাচনে জয়লাভ করে কয়রার উপজেলা চেয়ারম্যান  হয়েছি।দলীয় বিধি নিষেধ উপেক্ষা করায় আমার উপর দলের বৈরী মনোভাব ছিলো যেটা পরবর্তী তে কয়রা উপজেলা চেয়ারম্যান হওয়ার পরে শিথীলতা এসেছে।সাংবাদিকদের প্রশ্নে জবাবে তিনি বলেন আমি দলের হাইকমান্ডের সাথে কথা বলেছি,তারা জানিয়েছেন সর্বস্তরের সাধারন মানুষ যদি আপনাকে সমর্থন দেয় তবে নির্বাচনের জন্য প্রস্তূতি নেন।

সেই আশ্বাসের ভিত্তিতে আমি পাইকগাছা কয়রার সংসদ সদস্য পদপ্রার্থী  হতে চাই।পাইকগাছা কয়রার প্রানের দাবী গুলোকে আগামী দিনে সংসদ নির্বাচনে মনোয়ন পেলে জয়লাভের পরবতী সময় গুলোতে অসমাপ্ত কাজ কে সম্পন্ন করবো।কয়রায় আমার প্রায় ৭৫শতাংশ ভোট,জনগন আমাকে সমর্থন দিবে ইনশাআল্লাহ। পাইকগাছা মানুষের কাছে আমি খুউব পরিচিত হতে পারি নাই।আজ তাই ছুটে এসেছি।আপনারা আমার জন্য কষ্ট করে এই মিলনায়তনে এসেছেন। তার জন্য আমি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি।

আমি নির্বাচিত হলে পাইকগাছা কয়রাকে  আমি আধূনিক মান সন্মত শিল্পনগরী, কারিগরী শিক্ষা বাস্তবায়ন,সূসজ্জিত চিকিৎসা সেবাপ্রদান,সুন্দরবন  উপকূলীয় বাসীদের টেকসই বেড়ীবাঁধ নির্মান দীর্ঘস্হায়ী প্রকল্প গ্রহন,আধূনিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান।আইনশৃঙ্খলা উন্নয়ন, বেকার জনগোষ্ঠীর কর্মসংস্হানের ব্যবস্হা,আধূনিক চাষাবাদ পদ্বতি বাস্তবায়ন,চিংড়ি শিল্পের চাষাবাদ উন্নত প্রযুক্তির পরিস্ফুটন সহ কর্মসংস্হানে কারিগরী যুগোপযোগী শিক্ষা ব্যবস্হার গুরত্ব অধিক  বিবেচনা করে ইউ নিয়ন ভিতিক বেকার যুবক যুবতীদের প্রশিক্ষনের মাধ্যমে কর্মসংস্হানে এগিয়ে আসতে অন্চল ভিত্তিক শিল্পপতিদের সহায়তায় কর্মের মাধ্যমে তাদেরকে বেকারত্বের হাত থেকে মুক্তি দিবেন। 

তিনি বলেন আমি জনগনের সেবা ব্রতের মন নিয়ে হাটি হাটি পা পা করে জনগনের ভোটে এ পর্যন্ত এসেছি।দলের সিদ্বান্তে বাইরে গিয়েও আমি নির্বাচিত হয়ে প্রমান করেছি আমি জনগনের সেবক।তাই আমি কয়রা উপজেলা চেয়ারম্যান  হয়েছি।দল পরে আমাকে সাধারন ক্ষমা করে দিয়েছেন।এবারও আমি দলের হাই কমান্ডের সাথে কথা বলেছি,তারা জানিয়েছেন জনগনের সমর্থন থাকলে নির্বাচনের প্রস্তূতি নিতে।তাই পাইকগাছা বাসীদের কাছে আমার মনোয়ন প্রত্যাশি বার্তা নিয়ে এসেছি।

সাংবাদিকদের  বিভিন্ন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন যদিও আমি কয়রার সন্তান, তবুও আমি ওয়াদা করছি যদি আমি মনোয়ন পেয়ে সংসদ সদস্য হতে পারি তবে কয়রার থেকে আমি পাইকগাছা বাসীদের উন্নয়নের ক্ষেত্রে সবচেয়ে বেশী অগ্রাধিকার  দিবো।কারন কেউ যেন আমাকে প্রশ্নবিদ্ব না করতে পারে যে আমি কয়রার সন্তান তাই কয়রাকে বেশী প্রাধন্য দেবো।

সুন্দরবন জেলা বাস্তবায়ন,টেকসই বেড়ীবাঁধ নির্মান,আধুনিক শিক্ষা ব্যবস্হা ও চিকিৎসা ব্যবস্হা,আধূনিক চাষাবাদ পদ্বতি,কৃষি ব্যবস্হা উন্নয়ন

কারগরী শিক্ষা সম্প্রসারন,আবাসন ব্যবস্হায় প্রকৃত অসহায়দের ঘর বিতরন,সুনরবন সংরক্ষণ, রাস্তা ঘাট সংস্কার,উন্নত যোগাযোগ ব্যবস্হা আধূনিকি করন,নদী খনন,পরিবেশ দূষনের ক্ষতি রোধ করন।গার্মেন্টস শ্রমিকদের স্ব স্ব অন্চলে কর্মের সহায়তা প্রদানে শিল্পপতিদের সহায়তায় শিল্প কল কারখানা নির্মানে অগ্রনি ভূমিকা পালনে সচেষ্ট  হবেন।

পাইকগাছা কয়রার প্রায় ৫ লক্ষের অধিক মানুষ বিভিন্ন ইট ভাটাতে,গার্মেন্টস  ফাক্টরীতে ঢাকাসহ বিভিন্ন অন্চলে কাজ করেন তাদের কে নিজ অন্চলে কাজ করার সূযোগ করে দিতে চান।তিনি নির্বাচিত হলে পাইকগাছা কয়রার গুরুত্বপূর্ণ অন্চল সমূহে বাজার ঘাটের আধানিক দৃষ্টি  নন্দন পরিপাটি বানিজ্য মাধ্যম করে গড়ে তুলতে চান।তিনি পাইকগাছা কয়রার মানুষের দোয়া প্রত্যাশি।দলের মনোয়ন পেলে তিনি জনগনকে সাথে নিয়ে সবার আশা আকাঙ্খা পূরনে নিজেকে উৎস্বর্গ করবেন এ আশাবাদ ব্যক্ত করে আবার ও সবার কাছে দোয়া চেয়ে তিনি তার বক্তব্য শেষ করেন।

ট্যাগস
জনপ্রিয় সংবাদ

সিলেটে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত বিদ্যুৎ উপকেন্দ্রে সেনাবাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে

পাইকগাছা-কয়রা খুলনা (০৬) আসন থেকে নৌকা টিকিট নিয়ে নির্বাচন করতে সাংবাদিকের সাথে মতবিনিময়

আপডেট সময় ০৭:০০ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৪ অক্টোবর ২০২৩

আব্দুল মজিদ পাইকগাছা প্রতিনিধি : তৃনমূল থেকে উঠে আসা সৎ,পরীক্ষীত,কর্মঠ,এবং কয়রার  দক্ষ উপজেলা চেয়ারম্যান পাইকগাছা কয়রার জাতীয় সংসদ সদস্য প্রাথী হয়ে নৌকার মনোয়ন চান এসএম শফিকুল ইসলাম খুলনার পাইকগাছা আইনজীবী ভবনে বিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। কয়রা-উপজেলার সূযোগ্য চেয়ার ম্যান জনাব শফিকুল  ইসলাম শফিক কয়রা থেকে প্রায় ৫শতাধিক মোটর সাইকেল শোভা যাত্রা নিয়ে পাইকগাছা আইনজীবী  ভবনে আসেন সূধী সমাজ ও সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময়ের জন্য।এসময় তার সফর সঙী হিসাবে প্রায় দেড় হাজারের ও অধিক নেতাকর্মী উপস্হিত ছিলেন। পাইকগাছা আইনজীবী ভবনে পাইকগাছা কয়রার সাংবাদিক,ব্যবসায়ী,শ্রমিক,মেহনতী জনগনের সামনে ,আইনজীবী  ভবনে আগামী দিনের দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে পাইকগাছা কয়রা গড়ার স্বপ্ন নিয়ে সংসদ সদস্য প্রাথী হয়ে নৌকার মনোয়ন প্রত্যাশি ঘোষনা করেন।

তিনি বলেন,আমি কয়রা সদর ইউনিয়ন থেকে পর পর দুই দুইবার নির্বাচিত চেয়ারময়ান। কয়রা থেকে  বিগত উপজেলা  নির্বাচনে উপজেলা চেয়ারম্যান মনোয়ন প্রত্যাশি ছিলাম।দল থেকে মনোয়ন না পেয়েও  আমি জনগনের চাপে দলের সিদ্বান্তের বাইরে গিয়ে নির্বাচনে জয়লাভ করে কয়রার উপজেলা চেয়ারম্যান  হয়েছি।দলীয় বিধি নিষেধ উপেক্ষা করায় আমার উপর দলের বৈরী মনোভাব ছিলো যেটা পরবর্তী তে কয়রা উপজেলা চেয়ারম্যান হওয়ার পরে শিথীলতা এসেছে।সাংবাদিকদের প্রশ্নে জবাবে তিনি বলেন আমি দলের হাইকমান্ডের সাথে কথা বলেছি,তারা জানিয়েছেন সর্বস্তরের সাধারন মানুষ যদি আপনাকে সমর্থন দেয় তবে নির্বাচনের জন্য প্রস্তূতি নেন।

সেই আশ্বাসের ভিত্তিতে আমি পাইকগাছা কয়রার সংসদ সদস্য পদপ্রার্থী  হতে চাই।পাইকগাছা কয়রার প্রানের দাবী গুলোকে আগামী দিনে সংসদ নির্বাচনে মনোয়ন পেলে জয়লাভের পরবতী সময় গুলোতে অসমাপ্ত কাজ কে সম্পন্ন করবো।কয়রায় আমার প্রায় ৭৫শতাংশ ভোট,জনগন আমাকে সমর্থন দিবে ইনশাআল্লাহ। পাইকগাছা মানুষের কাছে আমি খুউব পরিচিত হতে পারি নাই।আজ তাই ছুটে এসেছি।আপনারা আমার জন্য কষ্ট করে এই মিলনায়তনে এসেছেন। তার জন্য আমি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি।

আমি নির্বাচিত হলে পাইকগাছা কয়রাকে  আমি আধূনিক মান সন্মত শিল্পনগরী, কারিগরী শিক্ষা বাস্তবায়ন,সূসজ্জিত চিকিৎসা সেবাপ্রদান,সুন্দরবন  উপকূলীয় বাসীদের টেকসই বেড়ীবাঁধ নির্মান দীর্ঘস্হায়ী প্রকল্প গ্রহন,আধূনিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান।আইনশৃঙ্খলা উন্নয়ন, বেকার জনগোষ্ঠীর কর্মসংস্হানের ব্যবস্হা,আধূনিক চাষাবাদ পদ্বতি বাস্তবায়ন,চিংড়ি শিল্পের চাষাবাদ উন্নত প্রযুক্তির পরিস্ফুটন সহ কর্মসংস্হানে কারিগরী যুগোপযোগী শিক্ষা ব্যবস্হার গুরত্ব অধিক  বিবেচনা করে ইউ নিয়ন ভিতিক বেকার যুবক যুবতীদের প্রশিক্ষনের মাধ্যমে কর্মসংস্হানে এগিয়ে আসতে অন্চল ভিত্তিক শিল্পপতিদের সহায়তায় কর্মের মাধ্যমে তাদেরকে বেকারত্বের হাত থেকে মুক্তি দিবেন। 

তিনি বলেন আমি জনগনের সেবা ব্রতের মন নিয়ে হাটি হাটি পা পা করে জনগনের ভোটে এ পর্যন্ত এসেছি।দলের সিদ্বান্তে বাইরে গিয়েও আমি নির্বাচিত হয়ে প্রমান করেছি আমি জনগনের সেবক।তাই আমি কয়রা উপজেলা চেয়ারম্যান  হয়েছি।দল পরে আমাকে সাধারন ক্ষমা করে দিয়েছেন।এবারও আমি দলের হাই কমান্ডের সাথে কথা বলেছি,তারা জানিয়েছেন জনগনের সমর্থন থাকলে নির্বাচনের প্রস্তূতি নিতে।তাই পাইকগাছা বাসীদের কাছে আমার মনোয়ন প্রত্যাশি বার্তা নিয়ে এসেছি।

সাংবাদিকদের  বিভিন্ন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন যদিও আমি কয়রার সন্তান, তবুও আমি ওয়াদা করছি যদি আমি মনোয়ন পেয়ে সংসদ সদস্য হতে পারি তবে কয়রার থেকে আমি পাইকগাছা বাসীদের উন্নয়নের ক্ষেত্রে সবচেয়ে বেশী অগ্রাধিকার  দিবো।কারন কেউ যেন আমাকে প্রশ্নবিদ্ব না করতে পারে যে আমি কয়রার সন্তান তাই কয়রাকে বেশী প্রাধন্য দেবো।

সুন্দরবন জেলা বাস্তবায়ন,টেকসই বেড়ীবাঁধ নির্মান,আধুনিক শিক্ষা ব্যবস্হা ও চিকিৎসা ব্যবস্হা,আধূনিক চাষাবাদ পদ্বতি,কৃষি ব্যবস্হা উন্নয়ন

কারগরী শিক্ষা সম্প্রসারন,আবাসন ব্যবস্হায় প্রকৃত অসহায়দের ঘর বিতরন,সুনরবন সংরক্ষণ, রাস্তা ঘাট সংস্কার,উন্নত যোগাযোগ ব্যবস্হা আধূনিকি করন,নদী খনন,পরিবেশ দূষনের ক্ষতি রোধ করন।গার্মেন্টস শ্রমিকদের স্ব স্ব অন্চলে কর্মের সহায়তা প্রদানে শিল্পপতিদের সহায়তায় শিল্প কল কারখানা নির্মানে অগ্রনি ভূমিকা পালনে সচেষ্ট  হবেন।

পাইকগাছা কয়রার প্রায় ৫ লক্ষের অধিক মানুষ বিভিন্ন ইট ভাটাতে,গার্মেন্টস  ফাক্টরীতে ঢাকাসহ বিভিন্ন অন্চলে কাজ করেন তাদের কে নিজ অন্চলে কাজ করার সূযোগ করে দিতে চান।তিনি নির্বাচিত হলে পাইকগাছা কয়রার গুরুত্বপূর্ণ অন্চল সমূহে বাজার ঘাটের আধানিক দৃষ্টি  নন্দন পরিপাটি বানিজ্য মাধ্যম করে গড়ে তুলতে চান।তিনি পাইকগাছা কয়রার মানুষের দোয়া প্রত্যাশি।দলের মনোয়ন পেলে তিনি জনগনকে সাথে নিয়ে সবার আশা আকাঙ্খা পূরনে নিজেকে উৎস্বর্গ করবেন এ আশাবাদ ব্যক্ত করে আবার ও সবার কাছে দোয়া চেয়ে তিনি তার বক্তব্য শেষ করেন।