ঢাকা , বুধবার, ২৯ মে ২০২৪, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বিএনপির শাসনামলে আইনের শাসনের ‘অ’-ও ছিল না: আইনমন্ত্রী

  • ডেস্ক :
  • আপডেট সময় ০৫:২১ অপরাহ্ন, শনিবার, ২১ অক্টোবর ২০২৩
  • 36

সিনিয়র রিপোর্টার : বিএনপির শাসনামলে আইনের শাসনের ‘অ’-ও ছিল না মন্তব্য করে আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী ব্যারিস্টার আনিসুল হক বলেছেন, “বিএনপি-জামায়াত যত দিন ক্ষমতায় ছিল তত দিন আইনের শাসনের অ‘ও ছিল না। শেখ হাসিনা ’৯৬ সালে সরকার গঠনের পর আইনের শাসন প্রতিষ্ঠার পদক্ষেপ হিসেবে কুখ্যাত ইনডেমনিটি অধ্যাদেশ বাতিল করেন। বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ড ও জেল হত্যাকাণ্ডের বিচার শুরু করেন। এবং এই বিচারকে একটি পর্যায়ে নিয়ে যান।”

শনিবার (২১ অক্টোবর) রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে আইনজীবীদের মহাসমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন। এর আগে সকাল ১১টা ২৩ মিনিটে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের সমাবেশস্থলে আসেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এরপর উপস্থিতি আইনজীবীদের উদ্দেশে হাত নেড়ে শুভেচ্ছা জানান তিনি।

তিনি আরও বলেন, ২০০১ সালে ষড়যন্ত্র করে আওয়ামী লীগকে পরাজিত করার পর আমরা এই হত্যাকাণ্ডের বিচার বন্ধ করার ঘৃণ্য হস্তক্ষেপ দেখতে পেয়েছি। ২০০৯ সালে সরকার গঠনের পর আবারও এই মামলার বিচারের দায়িত্ব শেখ হাসিনার ওপরই বর্তায়। দেশি-বিদেশি সব ষড়যন্ত্র মোকাবিলা করে তিনি সেটা শেষ করেছেন।

শেখ হাসিনার ভূয়সী প্রশংসা করে তিনি বলেন, ‘আমি যখন এই প্রোগ্রামের কার্ড দিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে, তখন তিনি বলেছিলেন আমার বাড়িতে আমাকেই কার্ড দিতে হবে? আমাদের অস্তিত্ব আপনার (প্রধানমন্ত্রী) অস্তিত্বের ওপর নির্ভর করে। কারণ আপনি আইনের শাসন পরিচালনাকারী।’

মামলাজট কমাতে সরকারের নেওয়া পদক্ষেপের কথা তুলে ধরে আনিসুল হক বলেন, কোনো সরকারের আমলে মামলাজট নিরসনের চেষ্টা করা হয়নি। কিন্তু আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় এসে মামলাজট কমানোর উদ্যোগ নেয়।

মহাসমাবেশে অংশ নেন বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদের কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দসহ সারা দেশ থেকে আসা বঙ্গবন্ধুর আদর্শ অনুসারী আইনজীবীরা।

ট্যাগস
জনপ্রিয় সংবাদ

সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন : অপরাধী হলে আজিজ-বেনজীরের বিচার হবে

বিএনপির শাসনামলে আইনের শাসনের ‘অ’-ও ছিল না: আইনমন্ত্রী

আপডেট সময় ০৫:২১ অপরাহ্ন, শনিবার, ২১ অক্টোবর ২০২৩

সিনিয়র রিপোর্টার : বিএনপির শাসনামলে আইনের শাসনের ‘অ’-ও ছিল না মন্তব্য করে আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী ব্যারিস্টার আনিসুল হক বলেছেন, “বিএনপি-জামায়াত যত দিন ক্ষমতায় ছিল তত দিন আইনের শাসনের অ‘ও ছিল না। শেখ হাসিনা ’৯৬ সালে সরকার গঠনের পর আইনের শাসন প্রতিষ্ঠার পদক্ষেপ হিসেবে কুখ্যাত ইনডেমনিটি অধ্যাদেশ বাতিল করেন। বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ড ও জেল হত্যাকাণ্ডের বিচার শুরু করেন। এবং এই বিচারকে একটি পর্যায়ে নিয়ে যান।”

শনিবার (২১ অক্টোবর) রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে আইনজীবীদের মহাসমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন। এর আগে সকাল ১১টা ২৩ মিনিটে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের সমাবেশস্থলে আসেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এরপর উপস্থিতি আইনজীবীদের উদ্দেশে হাত নেড়ে শুভেচ্ছা জানান তিনি।

তিনি আরও বলেন, ২০০১ সালে ষড়যন্ত্র করে আওয়ামী লীগকে পরাজিত করার পর আমরা এই হত্যাকাণ্ডের বিচার বন্ধ করার ঘৃণ্য হস্তক্ষেপ দেখতে পেয়েছি। ২০০৯ সালে সরকার গঠনের পর আবারও এই মামলার বিচারের দায়িত্ব শেখ হাসিনার ওপরই বর্তায়। দেশি-বিদেশি সব ষড়যন্ত্র মোকাবিলা করে তিনি সেটা শেষ করেছেন।

শেখ হাসিনার ভূয়সী প্রশংসা করে তিনি বলেন, ‘আমি যখন এই প্রোগ্রামের কার্ড দিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে, তখন তিনি বলেছিলেন আমার বাড়িতে আমাকেই কার্ড দিতে হবে? আমাদের অস্তিত্ব আপনার (প্রধানমন্ত্রী) অস্তিত্বের ওপর নির্ভর করে। কারণ আপনি আইনের শাসন পরিচালনাকারী।’

মামলাজট কমাতে সরকারের নেওয়া পদক্ষেপের কথা তুলে ধরে আনিসুল হক বলেন, কোনো সরকারের আমলে মামলাজট নিরসনের চেষ্টা করা হয়নি। কিন্তু আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় এসে মামলাজট কমানোর উদ্যোগ নেয়।

মহাসমাবেশে অংশ নেন বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদের কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দসহ সারা দেশ থেকে আসা বঙ্গবন্ধুর আদর্শ অনুসারী আইনজীবীরা।