ঢাকা , শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড় : সারাদেশে নৌযান চলাচল বন্ধ ঘোষণা ঝুঁকিপূর্ণ ১০ জেলার ১৫ লাখ মানুষকে আশ্রয়কেন্দ্রে নেওয়ার নির্দেশ

  • ডেস্ক :
  • আপডেট সময় ০৭:৩৪ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৪ অক্টোবর ২০২৩
  • 41

অনলাইন ডেস্ক :  বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট ঘূর্ণিঝড় ‘হামুন’ ধেয়ে আসছে। দিবাগত মধ্যরাতে উপকূলে আঘাত হানতে পারে। ফলে সারাদেশে নৌযান চলাচল বন্ধ ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিএ)। মঙ্গলবার (২৪ অক্টোবর) এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানায় নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, সারাদেশে নৌপথে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত সকল নৌযান চলাচল বন্ধ থাকবে। পরবর্তী ঘোষণা না দেওয়া পর্যন্ত সারাদেশের নদীপথে সব ধরনের নৌযান চলাচল বন্ধ থাকবে।

এদিকে,  ঝুঁকিপূর্ণ ১০ জেলার ১৫ লাখ মানুষকে আশ্রয়কেন্দ্রে নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়। ঘূর্ণিঝড়টি উত্তর-পূর্ব দিকে বরিশাল ও চট্টগ্রামের দিকে এগিয়ে আসছে। এর বাতাসের গতিবেগ ৮৯ কিলোমিটার থেকে ১১৭ কিলোমিটার পর্যন্ত রেকর্ড করা হয়েছে। 

আবহাওয়ার বিশেষ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, চট্টগ্রাম ও পায়রা সমুদ্রবন্দরসমুহকে ৭ নম্বর, কক্সবাজার সমুদ্রে ৬ নম্বর ও মোংলা সমুদ্রবন্দরকে ৫ নম্বর বিপদ সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে। উপকূলীয় জেলা পটুয়াখালী, ভোলা, বরিশাল, পিরোজপুর, ঝালকাঠি, বরগুনা, চট্টগ্রাম, ফেনী, নোয়াখালী, লক্ষীপুর এবং তাদের অদূরবর্তী দ্বীপ ও চরসমূহ ৭ নম্বর বিপদ সংকেতের আওতায় থাকবে জানায় আবহাওয়া অফিস। 

ট্যাগস
জনপ্রিয় সংবাদ

ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড় রেমাল : সতর্কতায় উপকূলে মাইকিং করেছে কোস্ট গার্ডের সদস্যরা

ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড় : সারাদেশে নৌযান চলাচল বন্ধ ঘোষণা ঝুঁকিপূর্ণ ১০ জেলার ১৫ লাখ মানুষকে আশ্রয়কেন্দ্রে নেওয়ার নির্দেশ

আপডেট সময় ০৭:৩৪ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৪ অক্টোবর ২০২৩

অনলাইন ডেস্ক :  বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট ঘূর্ণিঝড় ‘হামুন’ ধেয়ে আসছে। দিবাগত মধ্যরাতে উপকূলে আঘাত হানতে পারে। ফলে সারাদেশে নৌযান চলাচল বন্ধ ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিএ)। মঙ্গলবার (২৪ অক্টোবর) এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানায় নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, সারাদেশে নৌপথে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত সকল নৌযান চলাচল বন্ধ থাকবে। পরবর্তী ঘোষণা না দেওয়া পর্যন্ত সারাদেশের নদীপথে সব ধরনের নৌযান চলাচল বন্ধ থাকবে।

এদিকে,  ঝুঁকিপূর্ণ ১০ জেলার ১৫ লাখ মানুষকে আশ্রয়কেন্দ্রে নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়। ঘূর্ণিঝড়টি উত্তর-পূর্ব দিকে বরিশাল ও চট্টগ্রামের দিকে এগিয়ে আসছে। এর বাতাসের গতিবেগ ৮৯ কিলোমিটার থেকে ১১৭ কিলোমিটার পর্যন্ত রেকর্ড করা হয়েছে। 

আবহাওয়ার বিশেষ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, চট্টগ্রাম ও পায়রা সমুদ্রবন্দরসমুহকে ৭ নম্বর, কক্সবাজার সমুদ্রে ৬ নম্বর ও মোংলা সমুদ্রবন্দরকে ৫ নম্বর বিপদ সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে। উপকূলীয় জেলা পটুয়াখালী, ভোলা, বরিশাল, পিরোজপুর, ঝালকাঠি, বরগুনা, চট্টগ্রাম, ফেনী, নোয়াখালী, লক্ষীপুর এবং তাদের অদূরবর্তী দ্বীপ ও চরসমূহ ৭ নম্বর বিপদ সংকেতের আওতায় থাকবে জানায় আবহাওয়া অফিস।