ঢাকা , শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০২৪, ৩০ চৈত্র ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

এখনো ‘ক্রাইম সিন’ বিএনপির কার্যালয় : চারপাশে বসছে ক্যামেরা

  • ডেস্ক :
  • আপডেট সময় ০২:২৮ অপরাহ্ন, সোমবার, ৩০ অক্টোবর ২০২৩
  • 34
অনলাইন ডেস্ক :  রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়কে ‘ক্রাইম সিন’ উল্লেখ করে কর্ডন টেপ দিয়ে মুড়িয়ে দিয়েছিল পুলিশ। সেখানে নেতা-কর্মীরা কেউ প্রবেশ করতে পারছে না। আজও পুলিশের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে এই কার্যালয়। এ কারণে বিএনপির দৈনন্দিন কার্যক্রম থমকে গেছে।
এদিকে তদন্তকাজ কবে শেষ হবে কিংবা কবে নাগাদ বিএনপির কার্যালয় খুলে দেওয়া হবে, সে বিষয়ে কোনো তথ্য দিতে পারেননি পুলিশ কর্মকর্তারা।সরেজমিনে দেখা গেছে, বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের প্রধান ফটকের সামনে চারদিকে ‘ক্রাইম সিন’ লেখা ফিতা টানানো রয়েছে। লেখা আছে, ‘ডু নট ক্রস’। কার্যালয়ের দুই প্রান্তে পুলিশ অস্ত্র হাতে সারিবদ্ধভাবে দাঁড়িয়ে আছেন। কার্যালয়ের কলাপসিবল গেইটে ঝুলছে তালা।
এখানে যারা স্টাফ ছিলেন- কার্যালয়ের পাঁচ তলায় আবাসিকভাবে বসবাস করতেন, তাদের এখন আত্মীয়-স্বজনদের বাড়িতে থাকতে হচ্ছে। অপরদিকে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে লাইট পোস্টগুলোতে নতুন করে আরও সিসি ক্যামেরা লাগানো হচ্ছে।
বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, ২৮ তারিখের মহাসমাবেশে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে কিছু হয়নি। তাহলে কেন সেখানে ক্রাইম সিন দিয়ে ঘেরাও করে রাখা হবে? পুলিশ নিজেই হামলা করলো আমাদের নেতা-কর্মীদের ওপর। এখন আবার আমাদের কার্যালয় তারাই ঘেরাও করে রেখেছে।
তিনি আরও বলেন, আমাদের নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে মামলা দেওয়া হচ্ছে। বাড়ি বাড়িতে তল্লাশি চালানো হচ্ছে। ভাঙচুর করা হচ্ছে। নেতাদের না পেয়ে তাদের পরিবারের সদস্যদের নির্যাতন করা হচ্ছে। অনেক সময় পরিবারের সদস্যদের আটক করা হচ্ছে। অন্যদিকে দলের কার্যালয় পুলিশ নিয়ন্ত্রণে নিয়ে রাখছে। এ অবস্থায় স্বাভাবিকভাবে আমাদের দৈনন্দিন কার্যক্রম পরিচালনা বাধাগ্রস্ত হচ্ছে। পুলিশ জানিয়েছে, বিএনপির কার্যালয় এখন সিআইডির ক্রাইম সিন ইউনিটের নিয়ন্ত্রণে। এখানে তারা তদন্ত কাজ করছেন।
গত শনিবার রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির মহাসমাবেশ শুরুর আগেই দুপুরের দিকে কাকরাইলে দলের নেতাকর্মীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ হয়। এ সংঘর্ষ পরে বিজয়নগর পানির ট্যাংক ও শান্তিনগর এলাকায় ছড়িয়ে পড়ে। বেলা ৩টার দিকে মহাসমাবেশ পণ্ড হয়ে যায়।
ট্যাগস
জনপ্রিয় সংবাদ

গুলশানের ফিরোজাতেই পবিত্র ঈদুল ফিতর উদযাপন করছেন সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া

এখনো ‘ক্রাইম সিন’ বিএনপির কার্যালয় : চারপাশে বসছে ক্যামেরা

আপডেট সময় ০২:২৮ অপরাহ্ন, সোমবার, ৩০ অক্টোবর ২০২৩
অনলাইন ডেস্ক :  রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়কে ‘ক্রাইম সিন’ উল্লেখ করে কর্ডন টেপ দিয়ে মুড়িয়ে দিয়েছিল পুলিশ। সেখানে নেতা-কর্মীরা কেউ প্রবেশ করতে পারছে না। আজও পুলিশের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে এই কার্যালয়। এ কারণে বিএনপির দৈনন্দিন কার্যক্রম থমকে গেছে।
এদিকে তদন্তকাজ কবে শেষ হবে কিংবা কবে নাগাদ বিএনপির কার্যালয় খুলে দেওয়া হবে, সে বিষয়ে কোনো তথ্য দিতে পারেননি পুলিশ কর্মকর্তারা।সরেজমিনে দেখা গেছে, বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের প্রধান ফটকের সামনে চারদিকে ‘ক্রাইম সিন’ লেখা ফিতা টানানো রয়েছে। লেখা আছে, ‘ডু নট ক্রস’। কার্যালয়ের দুই প্রান্তে পুলিশ অস্ত্র হাতে সারিবদ্ধভাবে দাঁড়িয়ে আছেন। কার্যালয়ের কলাপসিবল গেইটে ঝুলছে তালা।
এখানে যারা স্টাফ ছিলেন- কার্যালয়ের পাঁচ তলায় আবাসিকভাবে বসবাস করতেন, তাদের এখন আত্মীয়-স্বজনদের বাড়িতে থাকতে হচ্ছে। অপরদিকে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে লাইট পোস্টগুলোতে নতুন করে আরও সিসি ক্যামেরা লাগানো হচ্ছে।
বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, ২৮ তারিখের মহাসমাবেশে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে কিছু হয়নি। তাহলে কেন সেখানে ক্রাইম সিন দিয়ে ঘেরাও করে রাখা হবে? পুলিশ নিজেই হামলা করলো আমাদের নেতা-কর্মীদের ওপর। এখন আবার আমাদের কার্যালয় তারাই ঘেরাও করে রেখেছে।
তিনি আরও বলেন, আমাদের নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে মামলা দেওয়া হচ্ছে। বাড়ি বাড়িতে তল্লাশি চালানো হচ্ছে। ভাঙচুর করা হচ্ছে। নেতাদের না পেয়ে তাদের পরিবারের সদস্যদের নির্যাতন করা হচ্ছে। অনেক সময় পরিবারের সদস্যদের আটক করা হচ্ছে। অন্যদিকে দলের কার্যালয় পুলিশ নিয়ন্ত্রণে নিয়ে রাখছে। এ অবস্থায় স্বাভাবিকভাবে আমাদের দৈনন্দিন কার্যক্রম পরিচালনা বাধাগ্রস্ত হচ্ছে। পুলিশ জানিয়েছে, বিএনপির কার্যালয় এখন সিআইডির ক্রাইম সিন ইউনিটের নিয়ন্ত্রণে। এখানে তারা তদন্ত কাজ করছেন।
গত শনিবার রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির মহাসমাবেশ শুরুর আগেই দুপুরের দিকে কাকরাইলে দলের নেতাকর্মীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ হয়। এ সংঘর্ষ পরে বিজয়নগর পানির ট্যাংক ও শান্তিনগর এলাকায় ছড়িয়ে পড়ে। বেলা ৩টার দিকে মহাসমাবেশ পণ্ড হয়ে যায়।