ঢাকা , শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৪, ৬ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

রাজনৈতিক সহিংসতায় ঢাকার ৭ কূটনৈতিক মিশনের উদ্বেগ

  • ডেস্ক :
  • আপডেট সময় ০৩:৩৩ অপরাহ্ন, সোমবার, ৩০ অক্টোবর ২০২৩
  • 26

অনলাইন ডেস্ক : শনিবার (২৮) অক্টোবর ঢাকায় রাজনৈতিক সমাবেশের সময় সহিংসতার ঘটনায় গভীর প্রকাশ করেছে অস্ট্রেলিয়া, কানাডা, জাপান, কোরিয়া প্রজাতন্ত্র, নরওয়ে, যুক্তরাজ্য ও যুক্তরাষ্ট্র সরকার। সেই সাথে নিহত ও আহতদের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন তারা।

সোমবার (৩০ অক্টোবর) ঢাকায় অবস্থানরত সাত দেশের কূটনৈতিক মিশনের যৌথ বিবৃতিতে এ উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়।

বিবৃতিতে বলা হয়, ২৮ অক্টোবরের রাজনৈতিক সমাবেশে নিহত ও আহতদের জন্য আমরা সমবেদনা জানাই। অবাধ, সুষ্ঠ, অংশগ্রহণমূলক ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচনের পরিবেশ সৃষ্টিতে আমরা সকল পক্ষকে সংযম প্রদর্শন, সহিংসতা পরিহার এবং একযোগে কাজ করার আহ্বান জানাচ্ছি।

গত শনিবার রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির মহাসমাবেশ ছিল। মহাসমাবেশ শুরুর আগে কাকরাইলে দুপুর থেকে বিএনপির নেতা-কর্মীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ হয়। পরে এই সংঘর্ষ বিজয়নগর পানির ট্যাংক ও শান্তিনগর এলাকায় ছড়িয়ে পড়ে এবং মহাসমাবেশ পণ্ড হয়ে যায়।

সরকার পতনের একদফা দাবিতে ২৮ অক্টোবর বিএনপি ঢাকায় মহাসমাবেশের কর্মসূচি দেয়। একইসঙ্গে জামায়াতে ইসলামী ও অন্যান্য বিরোধী রাজনৈতিক দলও সমাবেশ করে। অন্যদিকে একই সময়ে শান্তি সমাবেশ করে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। মহাসমাবেশকে কেন্দ্র করে রক্তক্ষয়ী এই সংঘর্ষে পুলিশের এক সদস্য ও যুবদলের ওয়ার্ড পর্যায়ের এক নেতা নিহত হয়েছেন। এতে আহত হয়েছেন পুলিশের ৪১ ও আনসারের ২৫ জন সদস্য। আহত হয়েছেন কমপক্ষে ২০ জন সাংবাদিক।

ট্যাগস
জনপ্রিয় সংবাদ

লোকসভা নির্বাচন-২০২৪ : ভোটের আগে বিজেপি ছেড়ে কংগ্রেসে যোগ দিলেন কর্ণাটকের সাবেক মন্ত্রী

রাজনৈতিক সহিংসতায় ঢাকার ৭ কূটনৈতিক মিশনের উদ্বেগ

আপডেট সময় ০৩:৩৩ অপরাহ্ন, সোমবার, ৩০ অক্টোবর ২০২৩

অনলাইন ডেস্ক : শনিবার (২৮) অক্টোবর ঢাকায় রাজনৈতিক সমাবেশের সময় সহিংসতার ঘটনায় গভীর প্রকাশ করেছে অস্ট্রেলিয়া, কানাডা, জাপান, কোরিয়া প্রজাতন্ত্র, নরওয়ে, যুক্তরাজ্য ও যুক্তরাষ্ট্র সরকার। সেই সাথে নিহত ও আহতদের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন তারা।

সোমবার (৩০ অক্টোবর) ঢাকায় অবস্থানরত সাত দেশের কূটনৈতিক মিশনের যৌথ বিবৃতিতে এ উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়।

বিবৃতিতে বলা হয়, ২৮ অক্টোবরের রাজনৈতিক সমাবেশে নিহত ও আহতদের জন্য আমরা সমবেদনা জানাই। অবাধ, সুষ্ঠ, অংশগ্রহণমূলক ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচনের পরিবেশ সৃষ্টিতে আমরা সকল পক্ষকে সংযম প্রদর্শন, সহিংসতা পরিহার এবং একযোগে কাজ করার আহ্বান জানাচ্ছি।

গত শনিবার রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির মহাসমাবেশ ছিল। মহাসমাবেশ শুরুর আগে কাকরাইলে দুপুর থেকে বিএনপির নেতা-কর্মীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ হয়। পরে এই সংঘর্ষ বিজয়নগর পানির ট্যাংক ও শান্তিনগর এলাকায় ছড়িয়ে পড়ে এবং মহাসমাবেশ পণ্ড হয়ে যায়।

সরকার পতনের একদফা দাবিতে ২৮ অক্টোবর বিএনপি ঢাকায় মহাসমাবেশের কর্মসূচি দেয়। একইসঙ্গে জামায়াতে ইসলামী ও অন্যান্য বিরোধী রাজনৈতিক দলও সমাবেশ করে। অন্যদিকে একই সময়ে শান্তি সমাবেশ করে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। মহাসমাবেশকে কেন্দ্র করে রক্তক্ষয়ী এই সংঘর্ষে পুলিশের এক সদস্য ও যুবদলের ওয়ার্ড পর্যায়ের এক নেতা নিহত হয়েছেন। এতে আহত হয়েছেন পুলিশের ৪১ ও আনসারের ২৫ জন সদস্য। আহত হয়েছেন কমপক্ষে ২০ জন সাংবাদিক।