ঢাকা , বৃহস্পতিবার, ২০ জুন ২০২৪, ৬ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বাংলাদেশের মানবাধিকার রেকর্ড যাচাই করবে জাতিসংঘ

  • ডেস্ক :
  • আপডেট সময় ০৪:১৪ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৯ নভেম্বর ২০২৩
  • 41

সিনিয়র রিপোর্টার : জেনেভায় অনুষ্ঠেয় বৈঠকে বাংলাদেশের মানবাধিকার সংশ্লিষ্ট রেকর্ডগুলো যাচাই করবে জাতিসংঘ। আগামী (১৩ নভেম্বর) সোমবার জেনেভায় এক মিটিংয়ে এই জাতিসংঘের মানবাধিকারবিষয়ক কাউন্সিলের ইউনিভার্সেল পিরিয়ডিক রিভিউয়ের (ইউপিআর) এই যাচাইকরণের কথা রয়েছে।

বুধবার (৮ নভেম্বর) জাতিসংঘের মানবাধিকারবিষয়ক হাইকমিশনারের ওয়েবসাইটে এ তথ্য দেওয়া হয়েছে। তা ওয়েবসাইটে সরাসরি সম্প্রচার করা হবে। যার ওয়েব লিংক https://media.un.org/en/asset/k1x/k1xoo0ty90। এই পর্যালোচনা যাচাই হবে জেনেভায় রুম-২০, প্যালেস ডেস ন্যাশনসে।

এতে বলা হয়েছে, ৬ নভেম্বর থেকে ১৭ নভেম্বর পর্যন্ত ইউপিআর ওয়ার্কিং গ্রুপ ১৪ দেশের মানবাধিকার পর্যালোচনা বা রিভিউ করবে। তার মধ্যে বাংলাদেশ অন্যতম। 

উল্লেখ্য, বাংলাদেশের প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় রিভিউ সম্পন্ন হয় যথাক্রমে ২০০৯ সালের ফেব্রুয়ারিতে, ২০১৩ সালের এপ্রিলে এবং ২০১৮ সালের মে মাসে। ইউপিআর ওয়ার্কিং গ্রুপ মানবাধিকার পরিষদের ৪৭ সদস্য দেশ নিয়ে গঠিত। তবে জাতিসংঘের ১৯৩ সদস্য দেশের প্রতিটিই একটি দেশের রিভিউতে অংশ নিতে পারে।

পর্যালোচনাগুলো যে নথিগুলোর ওপর ভিত্তি করে তৈরি করা হয়েছে সেগুলো হলো-

১. জাতীয় প্রতিবেদন- পর্যালোচনাধীন রাষ্ট্রের দেওয়া তথ্য।

২. নিরপেক্ষ মানবাধিকারবিষয়ক বিশেষজ্ঞ ও গ্রুপ- যা স্পেশাল প্রসিডিউর নামে পরিচিত, মানবাধিকার চুক্তি বিষয়ক সংস্থা এবং জাতিসংঘের অন্যান্য সংস্থাগুলোর দেয়া রিপোর্টের তথ্য।

৩. জাতীয় মানবাধিকার বিষয়ক প্রতিষ্ঠান, আঞ্চলিক সংগঠন ও নাগরিক সমাজের গ্রুপগুলোসহ অন্য অংশীদারদের দেওয়া তথ্য।

ইউপিআর হলো জাতিসংঘের ১৯৩টি রাষ্ট্রের সবার মানবাধিকার পর্যালোচনাকারী একটি সংগঠন। ২০০৮ সালের এপ্রিলে এর প্রথম বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। তারপর থেকে জাতিসংঘের ১৯৩ সদস্য রাষ্ট্রের পর্যালোচনা করা হয়েছে তিনবার।

রাষ্ট্রগুলো পূর্বের শুনানিতে যেসব সুপারিশ বাস্তবায়নের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল, তা সাম্প্রতিক মানবাধিকার রিপোর্টে কতটা বাস্তবায়ন হয়েছে তা যাচাই করে দেখা হবে। এতে বাংলাদেশের প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেবেন আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হক।

বাংলাদেশের পর্যালোচনাকারী হিসেবে যে তিনটি দেশ র‍্যাপোর্টিউর হিসেবে প্রতিনিধিত্ব করেছে তারা হলো- কিউবা, পাকিস্তান ও রোমানিয়া। এতে বাংলাদেশের জন্য যেসব সুপারিশ করবে ইউপিআর ওয়ার্কিং গ্রুপ তা বুধবার (১৫ নভেম্বর) স্থানীয় সময় বিকাল ৩টা ৩০ মিনিট থেকে সন্ধ্যা ৬টার মধ্যে গৃহীত হওয়ার শিডিউল আছে।

ট্যাগস
জনপ্রিয় সংবাদ

সিলেটে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত বিদ্যুৎ উপকেন্দ্রে সেনাবাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে

বাংলাদেশের মানবাধিকার রেকর্ড যাচাই করবে জাতিসংঘ

আপডেট সময় ০৪:১৪ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৯ নভেম্বর ২০২৩

সিনিয়র রিপোর্টার : জেনেভায় অনুষ্ঠেয় বৈঠকে বাংলাদেশের মানবাধিকার সংশ্লিষ্ট রেকর্ডগুলো যাচাই করবে জাতিসংঘ। আগামী (১৩ নভেম্বর) সোমবার জেনেভায় এক মিটিংয়ে এই জাতিসংঘের মানবাধিকারবিষয়ক কাউন্সিলের ইউনিভার্সেল পিরিয়ডিক রিভিউয়ের (ইউপিআর) এই যাচাইকরণের কথা রয়েছে।

বুধবার (৮ নভেম্বর) জাতিসংঘের মানবাধিকারবিষয়ক হাইকমিশনারের ওয়েবসাইটে এ তথ্য দেওয়া হয়েছে। তা ওয়েবসাইটে সরাসরি সম্প্রচার করা হবে। যার ওয়েব লিংক https://media.un.org/en/asset/k1x/k1xoo0ty90। এই পর্যালোচনা যাচাই হবে জেনেভায় রুম-২০, প্যালেস ডেস ন্যাশনসে।

এতে বলা হয়েছে, ৬ নভেম্বর থেকে ১৭ নভেম্বর পর্যন্ত ইউপিআর ওয়ার্কিং গ্রুপ ১৪ দেশের মানবাধিকার পর্যালোচনা বা রিভিউ করবে। তার মধ্যে বাংলাদেশ অন্যতম। 

উল্লেখ্য, বাংলাদেশের প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় রিভিউ সম্পন্ন হয় যথাক্রমে ২০০৯ সালের ফেব্রুয়ারিতে, ২০১৩ সালের এপ্রিলে এবং ২০১৮ সালের মে মাসে। ইউপিআর ওয়ার্কিং গ্রুপ মানবাধিকার পরিষদের ৪৭ সদস্য দেশ নিয়ে গঠিত। তবে জাতিসংঘের ১৯৩ সদস্য দেশের প্রতিটিই একটি দেশের রিভিউতে অংশ নিতে পারে।

পর্যালোচনাগুলো যে নথিগুলোর ওপর ভিত্তি করে তৈরি করা হয়েছে সেগুলো হলো-

১. জাতীয় প্রতিবেদন- পর্যালোচনাধীন রাষ্ট্রের দেওয়া তথ্য।

২. নিরপেক্ষ মানবাধিকারবিষয়ক বিশেষজ্ঞ ও গ্রুপ- যা স্পেশাল প্রসিডিউর নামে পরিচিত, মানবাধিকার চুক্তি বিষয়ক সংস্থা এবং জাতিসংঘের অন্যান্য সংস্থাগুলোর দেয়া রিপোর্টের তথ্য।

৩. জাতীয় মানবাধিকার বিষয়ক প্রতিষ্ঠান, আঞ্চলিক সংগঠন ও নাগরিক সমাজের গ্রুপগুলোসহ অন্য অংশীদারদের দেওয়া তথ্য।

ইউপিআর হলো জাতিসংঘের ১৯৩টি রাষ্ট্রের সবার মানবাধিকার পর্যালোচনাকারী একটি সংগঠন। ২০০৮ সালের এপ্রিলে এর প্রথম বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। তারপর থেকে জাতিসংঘের ১৯৩ সদস্য রাষ্ট্রের পর্যালোচনা করা হয়েছে তিনবার।

রাষ্ট্রগুলো পূর্বের শুনানিতে যেসব সুপারিশ বাস্তবায়নের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল, তা সাম্প্রতিক মানবাধিকার রিপোর্টে কতটা বাস্তবায়ন হয়েছে তা যাচাই করে দেখা হবে। এতে বাংলাদেশের প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেবেন আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হক।

বাংলাদেশের পর্যালোচনাকারী হিসেবে যে তিনটি দেশ র‍্যাপোর্টিউর হিসেবে প্রতিনিধিত্ব করেছে তারা হলো- কিউবা, পাকিস্তান ও রোমানিয়া। এতে বাংলাদেশের জন্য যেসব সুপারিশ করবে ইউপিআর ওয়ার্কিং গ্রুপ তা বুধবার (১৫ নভেম্বর) স্থানীয় সময় বিকাল ৩টা ৩০ মিনিট থেকে সন্ধ্যা ৬টার মধ্যে গৃহীত হওয়ার শিডিউল আছে।