ঢাকা , সোমবার, ২৭ মে ২০২৪, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

গ্রেপ্তার নিয়ে এইচআরডব্লিউ’র প্রতিবেদন বাস্তবতা বিবর্জিত: অ্যাটর্নি জেনারেল

  • ডেস্ক :
  • আপডেট সময় ০৬:০৮ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৭ নভেম্বর ২০২৩
  • 172

সিনিয়র রিপোর্টার : নির্বাচনের আগে বাংলাদেশে বিরোধী নেতা-কর্মীদের ব্যাপকহারে গ্রেফতার নিয়ে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংগঠন হিউম্যান রাইটস ওয়াচের (এইচআরডব্লিউ) প্রতিবেদন বাস্তবতা বিবর্জিত বলে মন্তব্য করে অ্যাটর্নি জেনারেল অ্যাডভোকেট আবু মোহাম্মদ আমিন উদ্দিন বলেছেন, যাদের সাজা হচ্ছে, সবই সাক্ষ্য-প্রমাণের ভিত্তিতে। সাক্ষ্য-প্রমাণ ছাড়া কারো বিরুদ্ধে বিচার করা হচ্ছে না।

সোমবার (২৭ নভেম্বর) দুপুরে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এ মন্তব্য করেন তিনি।

গত রোববার প্রকাশিত হিউম্যান রাইটস ওয়াচের প্রতিবেদনে জানানো হয়, ২০২৪ সালের ৭ জানুয়ারি অনুষ্ঠেয় সাধারণ নির্বাচনকে সামনে রেখে বাংলাদেশ কর্তৃপক্ষ বিরোধী দলীয় নেতা ও সমর্থকদের টার্গেট করছে। গত ২৮ অক্টোবর প্রধান বিরোধী দল বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলের (বিএনপি) সমাবেশের পর থেকে প্রায় ১০ হাজার বিরোধী দলীয় নেতা-কর্মীকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

এদিকে ১৩ জন প্রত্যক্ষদর্শীর সাক্ষাৎকার, ভিডিও ও পুলিশের প্রতিবেদন বিশ্লেষণের ভিত্তিতে হিউম্যান রাইটস ওয়াচ প্রমাণ পেয়েছে যে, সাম্প্রতিক নির্বাচন-সম্পর্কিত সহিংসতায় নিরাপত্তা বাহিনী অতিরিক্ত শক্তি প্রয়োগ, নির্বিচারে গণগ্রেফতার, জোরপূর্বক গুম, নির্যাতন এবং বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ডের জন্য দায়ী। কর্তৃপক্ষের উচিত সহিংসতার সমস্ত ঘটনা নিরপেক্ষভাবে তদন্ত করা। এমনকি উভয় পক্ষ একে অপরকে দোষারোপ করেছে- এমন মামলাও তদন্ত করা।

ট্যাগস
জনপ্রিয় সংবাদ

বিমানবাহিনীর নতুন প্রধান হাসান মাহমুদ খাঁনকে  অভিনন্দন জানিয়েছেন খাঁন আকতারুজ্জামান

গ্রেপ্তার নিয়ে এইচআরডব্লিউ’র প্রতিবেদন বাস্তবতা বিবর্জিত: অ্যাটর্নি জেনারেল

আপডেট সময় ০৬:০৮ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৭ নভেম্বর ২০২৩

সিনিয়র রিপোর্টার : নির্বাচনের আগে বাংলাদেশে বিরোধী নেতা-কর্মীদের ব্যাপকহারে গ্রেফতার নিয়ে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংগঠন হিউম্যান রাইটস ওয়াচের (এইচআরডব্লিউ) প্রতিবেদন বাস্তবতা বিবর্জিত বলে মন্তব্য করে অ্যাটর্নি জেনারেল অ্যাডভোকেট আবু মোহাম্মদ আমিন উদ্দিন বলেছেন, যাদের সাজা হচ্ছে, সবই সাক্ষ্য-প্রমাণের ভিত্তিতে। সাক্ষ্য-প্রমাণ ছাড়া কারো বিরুদ্ধে বিচার করা হচ্ছে না।

সোমবার (২৭ নভেম্বর) দুপুরে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এ মন্তব্য করেন তিনি।

গত রোববার প্রকাশিত হিউম্যান রাইটস ওয়াচের প্রতিবেদনে জানানো হয়, ২০২৪ সালের ৭ জানুয়ারি অনুষ্ঠেয় সাধারণ নির্বাচনকে সামনে রেখে বাংলাদেশ কর্তৃপক্ষ বিরোধী দলীয় নেতা ও সমর্থকদের টার্গেট করছে। গত ২৮ অক্টোবর প্রধান বিরোধী দল বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলের (বিএনপি) সমাবেশের পর থেকে প্রায় ১০ হাজার বিরোধী দলীয় নেতা-কর্মীকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

এদিকে ১৩ জন প্রত্যক্ষদর্শীর সাক্ষাৎকার, ভিডিও ও পুলিশের প্রতিবেদন বিশ্লেষণের ভিত্তিতে হিউম্যান রাইটস ওয়াচ প্রমাণ পেয়েছে যে, সাম্প্রতিক নির্বাচন-সম্পর্কিত সহিংসতায় নিরাপত্তা বাহিনী অতিরিক্ত শক্তি প্রয়োগ, নির্বিচারে গণগ্রেফতার, জোরপূর্বক গুম, নির্যাতন এবং বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ডের জন্য দায়ী। কর্তৃপক্ষের উচিত সহিংসতার সমস্ত ঘটনা নিরপেক্ষভাবে তদন্ত করা। এমনকি উভয় পক্ষ একে অপরকে দোষারোপ করেছে- এমন মামলাও তদন্ত করা।