ঢাকা , সোমবার, ১৫ জুলাই ২০২৪, ৩১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

আগামী ৩১ ডিসেম্বর সন্ধ্যার পর অনুষ্ঠানের অনুমতি দেওয়া হবে না: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

  • ডেস্ক :
  • আপডেট সময় ১১:০৯ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৫ ডিসেম্বর ২০২৩
  • 35

সিনিয়র রিপোর্টার : দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, ‘আগামী ৩১ ডিসেম্বর সন্ধ্যা ছয়টার পর থেকে দেশের কোন উন্মুক্ত স্থানে কোন অনুষ্ঠানের অনুমতি দেওয়া হবে না। ওড়ানো যাবে না ফানুস। কারণ, ৭ জানুয়ারি নির্বাচন। কেউ অনুষ্ঠান করতে চাইলে ইনডোর বা ঘরে করতে হবে। এ সময় মোড়ে মোড়ে চেকপোস্ট বসানোর কথাও উল্লেখ করেন তিনি।

মঙ্গলবার (৫ ডিসেম্বর) দুপুরে বড়দিন ও থার্টি ফার্স্ট উদ্‌যাপন উপলক্ষে আইনশৃঙ্খলা সংক্রান্ত সভা শেষে তিনি এ কথা বলেন।

সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আগামী ২৫ ডিসেম্বর খ্রিস্টধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় অনুষ্ঠান বড়দিন পালন নির্বিঘ্ন করতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী তৎপর রয়েছে। তাছাড়া আগামী ২৪ থেকে ২৬ ডিসেম্বর পর্যন্ত চার্চের আশেপাশের এলাকায় গোয়েন্দা বাহিনীর সতর্ক অবস্থান থাকবে। আর্চওয়ে, সিসি ক্যামেরা রাখতে বলা হয়েছে। এরপরও যেকোনো ‘অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতি’ দেখলে ৯৯৯-এ ফোন দিতে অনুরোধ করেন তিনি।

প্রসঙ্গত- গত শতকের শেষের দিক থেকে ইংরেজি নববর্ষ উদযাপনের আয়োজন জনপ্রিয় হতে থাকে বাংলাদেশে। এই উদযাপনে মাঝেমধ্যে ‘অনাকাঙ্ক্ষিত’ ঘটনার খবর আসায় এই আয়োজনে কড়াকড়িও আরোপ করা হয়। এবার দেশের দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের সাতদিন আগে থার্টি ফাস্ট হবে। নির্বাচনকে কেন্দ্র করে সহিংসতা ঠেকাতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর তৎপরতা এর মধ্যেই বেড়েছে।

ট্যাগস
জনপ্রিয় সংবাদ

আমার বাসায় পিয়ন ৪০০ কোটি টাকার মালিক, তাকেও ধরা হয়েছে : প্রধানমন্ত্রী

আগামী ৩১ ডিসেম্বর সন্ধ্যার পর অনুষ্ঠানের অনুমতি দেওয়া হবে না: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

আপডেট সময় ১১:০৯ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৫ ডিসেম্বর ২০২৩

সিনিয়র রিপোর্টার : দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, ‘আগামী ৩১ ডিসেম্বর সন্ধ্যা ছয়টার পর থেকে দেশের কোন উন্মুক্ত স্থানে কোন অনুষ্ঠানের অনুমতি দেওয়া হবে না। ওড়ানো যাবে না ফানুস। কারণ, ৭ জানুয়ারি নির্বাচন। কেউ অনুষ্ঠান করতে চাইলে ইনডোর বা ঘরে করতে হবে। এ সময় মোড়ে মোড়ে চেকপোস্ট বসানোর কথাও উল্লেখ করেন তিনি।

মঙ্গলবার (৫ ডিসেম্বর) দুপুরে বড়দিন ও থার্টি ফার্স্ট উদ্‌যাপন উপলক্ষে আইনশৃঙ্খলা সংক্রান্ত সভা শেষে তিনি এ কথা বলেন।

সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আগামী ২৫ ডিসেম্বর খ্রিস্টধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় অনুষ্ঠান বড়দিন পালন নির্বিঘ্ন করতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী তৎপর রয়েছে। তাছাড়া আগামী ২৪ থেকে ২৬ ডিসেম্বর পর্যন্ত চার্চের আশেপাশের এলাকায় গোয়েন্দা বাহিনীর সতর্ক অবস্থান থাকবে। আর্চওয়ে, সিসি ক্যামেরা রাখতে বলা হয়েছে। এরপরও যেকোনো ‘অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতি’ দেখলে ৯৯৯-এ ফোন দিতে অনুরোধ করেন তিনি।

প্রসঙ্গত- গত শতকের শেষের দিক থেকে ইংরেজি নববর্ষ উদযাপনের আয়োজন জনপ্রিয় হতে থাকে বাংলাদেশে। এই উদযাপনে মাঝেমধ্যে ‘অনাকাঙ্ক্ষিত’ ঘটনার খবর আসায় এই আয়োজনে কড়াকড়িও আরোপ করা হয়। এবার দেশের দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের সাতদিন আগে থার্টি ফাস্ট হবে। নির্বাচনকে কেন্দ্র করে সহিংসতা ঠেকাতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর তৎপরতা এর মধ্যেই বেড়েছে।