ঢাকা , বুধবার, ২৯ মে ২০২৪, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

আচরণ বিধি লঙ্ঘনের অভিযোগে বাহাউদ্দিন নাছিম কে কারণ দর্শানোর নোটিশ দিয়েছে নির্বাচনি অনুসন্ধান কমিটি

  • ডেস্ক :
  • আপডেট সময় ০৩:৫২ অপরাহ্ন, শনিবার, ৯ ডিসেম্বর ২০২৩
  • 34

অনলাইন ডেস্ক :  আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগে ঢাকা-৮ আসনের সংসদ সদস্য আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিমকে কারণ দর্শানোর নোটিশ (শোকজ) দিয়েছে নির্বাচনি অনুসন্ধান কমিটি। শনিবার (৯ ডিসেম্বর) কমিটি ও যুগ্ম জেলা জজ মোছাম্মৎ ইছরাত জাহান নাসরিনের সইয়ে তাকে এ নোটিশ দেওয়া হয়।

নোটিশে গণমাধ্যমের উদ্ধৃতি দিয়ে বলা হয়, আপনি ৭ ডিসেম্বর রাজধানীর শান্তিনগর, শাহজাহানপুর ও আরামবাগের স্থানীয় জনগণের সঙ্গে মতবিনিময় করেছেন। এ সময় দলীয় নেতাকর্মীদের সঙ্গে নিয়ে এসব এলাকায় যান। এছাড়া স্থানীয় নির্বাচনি কার্যালয় পরিদর্শন করেন। তখন বিপুল জনসমাগম ঘটে। আপনি নৌকার পক্ষে নির্বাচনি প্রচারণা চালান যা নির্বাচন পূর্ব অনিয়ম হিসেবে গণ্য হয়। ওই সংবাদ বিভিন্ন পত্র-পত্রিকা এবং অনলাইন পোর্টালে প্রকাশ হয়। সংবাদ প্রকাশ হওয়ার পর বিষয়টি কমিটির গোচরীভূত হয়। এর পর এসব সংবাদের তথ্য বিশ্লেষণ করে অনিয়মের সত্যতা পায় অনুসন্ধান কমিটি।

নোটিশে আরও বলা হয়, মতবিনিময় সভাকে কেন্দ্র করে নির্বাচনি এলাকার বিভিন্ন স্থানে নৌকা প্রতীকের পোস্টার ও ব্যানার লাগানো হয়েছে। এছাড়া নির্বাচনি এলাকা-১৮১ এর শাহবাগ মোড় যাদুঘরের সামনে, নয়াপল্টন কালভার্ট রোড রুপায়ন টাওয়ারের সামনে, মৌচাক মোড় ফ্লাইওভারের নিচে, মালিবাগ মোড়, শান্তিনগর মোড়, দৈনিক বাংলার মোড়, আমতলা মোড়, শাহজাহানপুর চৌরাস্তায় আপনার নাম, ছবি এবং নৌকা প্রতীক ব্যবহার করে বিশাল রঙিন ব্যানার, বিলবোর্ড স্থাপন করা হয়েছে। যা বৈদ্যুতিক খুঁটি, পিলার, ফুটওভার ব্রিজ ও মেট্রো রেলের পিলারের সঙ্গে লাগানো আছে। এ কার্যক্রম নির্বাচন পূর্ব অনিয়ম হিসেবে গণ্য হয়েছে।

বাহাউদ্দিন নাছিমের এসব কার্যক্রমে আচরণবিধি লঙ্ঘন হয়েছে উল্লেখ করে নোটিশে বলা হয়, আপনি জাতীয় সংসদ নির্বাচন আচরণ বিধিমালা-২০০৮ এর বিধি ১২ এবং ৭(১) এর (ক), (খ) লঙ্ঘন করেছেন। উক্ত বিধি অনুযায়ী ভোটগ্রহণের জন্য নির্ধারিত দিনের তিন সপ্তাহ সময়ের আগে কোনো প্রকার নির্বাচনি প্রচার শুরু করতে পারবেন না। এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য কেন বিষয়টি নির্বাচন কমিশনের কাছে প্রেরণ করা হবে না তা রোববার দুপুর ৩টার মধ্যে অত্র কমিটির কার্যালয়, জজ (যুগ্ম জেলা জজ) অর্থঋণ আদালত নং-৪, ঢাকায় ব্যক্তিগতভাবে অথবা আপনার মনোনীত একজন প্রতিনিধির মাধ্যমে হাজির হয়ে লিখিত ব্যাখ্যা দিতে নির্দেশ প্রদান করা হলো।

ট্যাগস
জনপ্রিয় সংবাদ

সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন : অপরাধী হলে আজিজ-বেনজীরের বিচার হবে

আচরণ বিধি লঙ্ঘনের অভিযোগে বাহাউদ্দিন নাছিম কে কারণ দর্শানোর নোটিশ দিয়েছে নির্বাচনি অনুসন্ধান কমিটি

আপডেট সময় ০৩:৫২ অপরাহ্ন, শনিবার, ৯ ডিসেম্বর ২০২৩

অনলাইন ডেস্ক :  আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগে ঢাকা-৮ আসনের সংসদ সদস্য আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিমকে কারণ দর্শানোর নোটিশ (শোকজ) দিয়েছে নির্বাচনি অনুসন্ধান কমিটি। শনিবার (৯ ডিসেম্বর) কমিটি ও যুগ্ম জেলা জজ মোছাম্মৎ ইছরাত জাহান নাসরিনের সইয়ে তাকে এ নোটিশ দেওয়া হয়।

নোটিশে গণমাধ্যমের উদ্ধৃতি দিয়ে বলা হয়, আপনি ৭ ডিসেম্বর রাজধানীর শান্তিনগর, শাহজাহানপুর ও আরামবাগের স্থানীয় জনগণের সঙ্গে মতবিনিময় করেছেন। এ সময় দলীয় নেতাকর্মীদের সঙ্গে নিয়ে এসব এলাকায় যান। এছাড়া স্থানীয় নির্বাচনি কার্যালয় পরিদর্শন করেন। তখন বিপুল জনসমাগম ঘটে। আপনি নৌকার পক্ষে নির্বাচনি প্রচারণা চালান যা নির্বাচন পূর্ব অনিয়ম হিসেবে গণ্য হয়। ওই সংবাদ বিভিন্ন পত্র-পত্রিকা এবং অনলাইন পোর্টালে প্রকাশ হয়। সংবাদ প্রকাশ হওয়ার পর বিষয়টি কমিটির গোচরীভূত হয়। এর পর এসব সংবাদের তথ্য বিশ্লেষণ করে অনিয়মের সত্যতা পায় অনুসন্ধান কমিটি।

নোটিশে আরও বলা হয়, মতবিনিময় সভাকে কেন্দ্র করে নির্বাচনি এলাকার বিভিন্ন স্থানে নৌকা প্রতীকের পোস্টার ও ব্যানার লাগানো হয়েছে। এছাড়া নির্বাচনি এলাকা-১৮১ এর শাহবাগ মোড় যাদুঘরের সামনে, নয়াপল্টন কালভার্ট রোড রুপায়ন টাওয়ারের সামনে, মৌচাক মোড় ফ্লাইওভারের নিচে, মালিবাগ মোড়, শান্তিনগর মোড়, দৈনিক বাংলার মোড়, আমতলা মোড়, শাহজাহানপুর চৌরাস্তায় আপনার নাম, ছবি এবং নৌকা প্রতীক ব্যবহার করে বিশাল রঙিন ব্যানার, বিলবোর্ড স্থাপন করা হয়েছে। যা বৈদ্যুতিক খুঁটি, পিলার, ফুটওভার ব্রিজ ও মেট্রো রেলের পিলারের সঙ্গে লাগানো আছে। এ কার্যক্রম নির্বাচন পূর্ব অনিয়ম হিসেবে গণ্য হয়েছে।

বাহাউদ্দিন নাছিমের এসব কার্যক্রমে আচরণবিধি লঙ্ঘন হয়েছে উল্লেখ করে নোটিশে বলা হয়, আপনি জাতীয় সংসদ নির্বাচন আচরণ বিধিমালা-২০০৮ এর বিধি ১২ এবং ৭(১) এর (ক), (খ) লঙ্ঘন করেছেন। উক্ত বিধি অনুযায়ী ভোটগ্রহণের জন্য নির্ধারিত দিনের তিন সপ্তাহ সময়ের আগে কোনো প্রকার নির্বাচনি প্রচার শুরু করতে পারবেন না। এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য কেন বিষয়টি নির্বাচন কমিশনের কাছে প্রেরণ করা হবে না তা রোববার দুপুর ৩টার মধ্যে অত্র কমিটির কার্যালয়, জজ (যুগ্ম জেলা জজ) অর্থঋণ আদালত নং-৪, ঢাকায় ব্যক্তিগতভাবে অথবা আপনার মনোনীত একজন প্রতিনিধির মাধ্যমে হাজির হয়ে লিখিত ব্যাখ্যা দিতে নির্দেশ প্রদান করা হলো।