ঢাকা , রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪, ৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

একমাত্র আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকলেই দেশের উন্নয়ন হয় : প্রধানমন্ত্রী

  • ডেস্ক :
  • আপডেট সময় ০৫:৫৮ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৬ ডিসেম্বর ২০২৩
  • 157

সিনিয়র রিপোর্টার : দেশের উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে দ্বাদশ সংসদ নির্বাচন নৌকা মার্কায় ভোট দেওয়ার আহ্বান জানিয়ে আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, একমাত্র আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকলেই দেশের উন্নয়ন হয়। আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর থেকে মানুষের উন্নয়নে কাজ করে গেছে। ভবিষ্যতেও আওয়ামী লীগ জনগণের উন্নয়ন করে যাবে।

মঙ্গলবার (২৬ ডিসেম্বর) দুপুরে তারাগঞ্জ সরকারি কলেজ প্রাঙ্গনে রংপুর-২ (বদরগঞ্জ-তারাগঞ্জ) আসনের প্রার্থী আবুল কালাম মো. আহসানুল হক চৌধুরী ডিউকের নির্বাচনি সভায় যোগ দিয়ে তিনি এসব কথা বলেন।

শেখ হাসিনা বলেন, ‘১৯৭৫ এর ১৫ আগস্ট পরিবারের সকলকে হারিয়েছি। আমার আর হারানোর কিছুই নেই। বাবা-মা আর ছোট ভাই রাসেলকে হারানোর পর প্রতিজ্ঞা নিয়েছিলাম দেশের মানুষের সেবা করার জন্যই দেশে ফিরব। আমার বাবা সারা জীবন দেশের জন্য কাজ করে গেছেন। এ জন্য দেশে ফিরলাম। সেদিন সিদ্ধান্ত নিয়েছি দেশকে এগিয়ে নিয়ে যেতে কাজ করব। জনগণই আমার আপনজন।’

আওয়ামী লীগ সভাপতি বলেন, ‘রংপুর অঞ্চল আর মঙ্গা নেই। একটা সময় রংপুর পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠী ছিল। এখন রংপুরের অনেক উন্নয়ন হয়েছে যা আওয়ামী লীগ সরকার করেছে। ১৯৯৬ সালে ক্ষমতায় আসার পর থেকে আওয়ামী লীগ রংপুর অঞ্চলের উন্নয়নের জন্য বিভিন্ন মেগা প্রকল্প হাতে নিয়েছে। এখন যে উত্তরাঞ্চলে আর মঙ্গা নেই রংপুর সেটির উদাহরণ।’

নৌকার প্রার্থী আবুল কালাম মো. আহসানুল হক চৌধুরী ডিউকের পক্ষে ভোট চেয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, নৌকা মার্কাই জীবনমান উন্নত করেছে। নৌকায় ভোট দিয়ে উন্নয়নের ধারাবাহিকতা বজায় রাখুন। আবারও তাকে ভোট দিয়ে উন্নয়ন করার সুযোগ দিন। এ সময় আগামী নির্বাচনে নৌকায় ভোট প্রত্যাশা করে ওয়াদা চাইলে উপস্থিত জনতা দুই হাত তুলে সাড়া দেন।

আবার ক্ষমতায় এলে কেউ গৃহহীন থাকবে না উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, ‘আওয়ামী লীগ আবার সরকার গঠনের সুযোগ পেলে প্রতিটি জেলা ভূমি ও গৃহহীনমুক্ত হবে। দেশের এমন কোনো জেলা নেই যেখানে উন্নয়নের ছোঁয়া লাগেনি। বিনামূল্যে বই ও প্রাথমিক থেকে উচ্চশিক্ষা পর্যন্ত উপবৃত্তির ব্যবস্থা করে দিয়েছে আওয়ামী লীগ।’

তিনি বলেন, ‘১৯৯৬ সালে আমরা ক্ষমতায় আসার পর স্বাস্থ্যসেবার ওপর গুরুত্ব দিই। এখন স্বাস্থ্যসেবা সারা দেশের মানুষের দোরগোড়ায় পৌঁছে গেছে। স্বাস্থ্যসেবা পরিষেবাগুলো প্রতিটি মানুষের দোরগোড়ায় পৌঁছে গেছে এবং সাধারণ মানুষ সেখানে চিকিৎসা নিতে আসছে। এছাড়াও ৯৬ সালে বিনা জামানতে বর্গাচাষীদের কৃষি ঋণের ব্যবস্থা করে দিয়েছিলাম। মাত্র ১০ টাকায় কৃষক যাতে ব্যাংক অ্যাকাউন্ট খুলতে পারেন সেই ব্যবস্থা করে দেওয়া হয়েছে। কৃষকদের কার্ড করে দেওয়া হয়েছে। ভর্তুকি দিয়ে সার-বীজ ক্রয়ের ব্যবস্থা করা হয়েছে। কৃষির জন্য বিদ্যুতের ভর্তুকি দেওয়া হয়েছে। কৃষি উন্নয়নে সব ক্ষেত্রে ভর্তুকি দেওয়া হচ্ছে। এখন আর কাঠের লাঙল নয়, মেশিনে ধান লাগানো ও কাটা হচ্ছে। সেটার ব্যবস্থাও করে দিয়েছে আওয়ামী লীগ সরকার।’

ডিজিটাল বাংলাদেশের পর বাংলাদেশ এখন স্মার্ট হয়ে যাচ্ছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘একটা সময় ঘোষণা দিয়েছিলাম ডিজিটাল বাংলাদেশের এখন অপেক্ষা শুধু স্মার্ট বাংলাদেশ। বাংলাদেশের মানুষ এখন স্মার্ট হয়েছে। আশা করি বাংলাদেশের মানুষ আবারও উন্নয়ন ত্বরান্বিত রাখতে আওয়ামী লীগ সরকারকে ক্ষমতায় আনবেন।’

তারাগঞ্জে রংপুর-২ (বদরগঞ্জ-তারাগঞ্জ) আসনের প্রার্থী আবুল কালাম মো. আহসানুল হক চৌধুরী ডিউকের নির্বাচনি সভা শেষে পীরগঞ্জ যাওয়ার পথে মিঠাপুকুর উপজেলায় জায়গীর আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে রংপুর-৫ আসনের নৌকার প্রার্থী রাশেক রহমানের একটি নির্বাচনি পথসভায় বক্তব্য দেবেন প্রধানমন্ত্রী। এরপর পীরগঞ্জ সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে বিকেল ৩টায় রংপুর-৬ (পীরগঞ্জ) আসনের প্রার্থী স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর নির্বাচনি জনসভায় বক্তব্য দেবেন।

প্রসঙ্গত- ২০১৮ সালের একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনেও রংপুর-২ (বদরগঞ্জ-তারাগঞ্জ) আসনের আওয়ামী লীগের মনোনীত নৌকার প্রার্থী আহসানুল হক চৌধুরী ডিউক এবং রংপুর-৬ (পীরগঞ্জ) আসনের আওয়ামী লীগের মনোনীত নৌকার প্রার্থী ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর নির্বাচনি সভায় বক্তব্য দিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ হাসিনা।

ট্যাগস
জনপ্রিয় সংবাদ

র‌্যাবকে যেসব নির্দেশনা দিলেন নতুন ডিজি

একমাত্র আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকলেই দেশের উন্নয়ন হয় : প্রধানমন্ত্রী

আপডেট সময় ০৫:৫৮ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৬ ডিসেম্বর ২০২৩

সিনিয়র রিপোর্টার : দেশের উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে দ্বাদশ সংসদ নির্বাচন নৌকা মার্কায় ভোট দেওয়ার আহ্বান জানিয়ে আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, একমাত্র আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকলেই দেশের উন্নয়ন হয়। আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর থেকে মানুষের উন্নয়নে কাজ করে গেছে। ভবিষ্যতেও আওয়ামী লীগ জনগণের উন্নয়ন করে যাবে।

মঙ্গলবার (২৬ ডিসেম্বর) দুপুরে তারাগঞ্জ সরকারি কলেজ প্রাঙ্গনে রংপুর-২ (বদরগঞ্জ-তারাগঞ্জ) আসনের প্রার্থী আবুল কালাম মো. আহসানুল হক চৌধুরী ডিউকের নির্বাচনি সভায় যোগ দিয়ে তিনি এসব কথা বলেন।

শেখ হাসিনা বলেন, ‘১৯৭৫ এর ১৫ আগস্ট পরিবারের সকলকে হারিয়েছি। আমার আর হারানোর কিছুই নেই। বাবা-মা আর ছোট ভাই রাসেলকে হারানোর পর প্রতিজ্ঞা নিয়েছিলাম দেশের মানুষের সেবা করার জন্যই দেশে ফিরব। আমার বাবা সারা জীবন দেশের জন্য কাজ করে গেছেন। এ জন্য দেশে ফিরলাম। সেদিন সিদ্ধান্ত নিয়েছি দেশকে এগিয়ে নিয়ে যেতে কাজ করব। জনগণই আমার আপনজন।’

আওয়ামী লীগ সভাপতি বলেন, ‘রংপুর অঞ্চল আর মঙ্গা নেই। একটা সময় রংপুর পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠী ছিল। এখন রংপুরের অনেক উন্নয়ন হয়েছে যা আওয়ামী লীগ সরকার করেছে। ১৯৯৬ সালে ক্ষমতায় আসার পর থেকে আওয়ামী লীগ রংপুর অঞ্চলের উন্নয়নের জন্য বিভিন্ন মেগা প্রকল্প হাতে নিয়েছে। এখন যে উত্তরাঞ্চলে আর মঙ্গা নেই রংপুর সেটির উদাহরণ।’

নৌকার প্রার্থী আবুল কালাম মো. আহসানুল হক চৌধুরী ডিউকের পক্ষে ভোট চেয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, নৌকা মার্কাই জীবনমান উন্নত করেছে। নৌকায় ভোট দিয়ে উন্নয়নের ধারাবাহিকতা বজায় রাখুন। আবারও তাকে ভোট দিয়ে উন্নয়ন করার সুযোগ দিন। এ সময় আগামী নির্বাচনে নৌকায় ভোট প্রত্যাশা করে ওয়াদা চাইলে উপস্থিত জনতা দুই হাত তুলে সাড়া দেন।

আবার ক্ষমতায় এলে কেউ গৃহহীন থাকবে না উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, ‘আওয়ামী লীগ আবার সরকার গঠনের সুযোগ পেলে প্রতিটি জেলা ভূমি ও গৃহহীনমুক্ত হবে। দেশের এমন কোনো জেলা নেই যেখানে উন্নয়নের ছোঁয়া লাগেনি। বিনামূল্যে বই ও প্রাথমিক থেকে উচ্চশিক্ষা পর্যন্ত উপবৃত্তির ব্যবস্থা করে দিয়েছে আওয়ামী লীগ।’

তিনি বলেন, ‘১৯৯৬ সালে আমরা ক্ষমতায় আসার পর স্বাস্থ্যসেবার ওপর গুরুত্ব দিই। এখন স্বাস্থ্যসেবা সারা দেশের মানুষের দোরগোড়ায় পৌঁছে গেছে। স্বাস্থ্যসেবা পরিষেবাগুলো প্রতিটি মানুষের দোরগোড়ায় পৌঁছে গেছে এবং সাধারণ মানুষ সেখানে চিকিৎসা নিতে আসছে। এছাড়াও ৯৬ সালে বিনা জামানতে বর্গাচাষীদের কৃষি ঋণের ব্যবস্থা করে দিয়েছিলাম। মাত্র ১০ টাকায় কৃষক যাতে ব্যাংক অ্যাকাউন্ট খুলতে পারেন সেই ব্যবস্থা করে দেওয়া হয়েছে। কৃষকদের কার্ড করে দেওয়া হয়েছে। ভর্তুকি দিয়ে সার-বীজ ক্রয়ের ব্যবস্থা করা হয়েছে। কৃষির জন্য বিদ্যুতের ভর্তুকি দেওয়া হয়েছে। কৃষি উন্নয়নে সব ক্ষেত্রে ভর্তুকি দেওয়া হচ্ছে। এখন আর কাঠের লাঙল নয়, মেশিনে ধান লাগানো ও কাটা হচ্ছে। সেটার ব্যবস্থাও করে দিয়েছে আওয়ামী লীগ সরকার।’

ডিজিটাল বাংলাদেশের পর বাংলাদেশ এখন স্মার্ট হয়ে যাচ্ছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘একটা সময় ঘোষণা দিয়েছিলাম ডিজিটাল বাংলাদেশের এখন অপেক্ষা শুধু স্মার্ট বাংলাদেশ। বাংলাদেশের মানুষ এখন স্মার্ট হয়েছে। আশা করি বাংলাদেশের মানুষ আবারও উন্নয়ন ত্বরান্বিত রাখতে আওয়ামী লীগ সরকারকে ক্ষমতায় আনবেন।’

তারাগঞ্জে রংপুর-২ (বদরগঞ্জ-তারাগঞ্জ) আসনের প্রার্থী আবুল কালাম মো. আহসানুল হক চৌধুরী ডিউকের নির্বাচনি সভা শেষে পীরগঞ্জ যাওয়ার পথে মিঠাপুকুর উপজেলায় জায়গীর আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে রংপুর-৫ আসনের নৌকার প্রার্থী রাশেক রহমানের একটি নির্বাচনি পথসভায় বক্তব্য দেবেন প্রধানমন্ত্রী। এরপর পীরগঞ্জ সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে বিকেল ৩টায় রংপুর-৬ (পীরগঞ্জ) আসনের প্রার্থী স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর নির্বাচনি জনসভায় বক্তব্য দেবেন।

প্রসঙ্গত- ২০১৮ সালের একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনেও রংপুর-২ (বদরগঞ্জ-তারাগঞ্জ) আসনের আওয়ামী লীগের মনোনীত নৌকার প্রার্থী আহসানুল হক চৌধুরী ডিউক এবং রংপুর-৬ (পীরগঞ্জ) আসনের আওয়ামী লীগের মনোনীত নৌকার প্রার্থী ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর নির্বাচনি সভায় বক্তব্য দিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ হাসিনা।