ঢাকা , রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪, ৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

গত ১৬ ঘণ্টায় সারাদেশে মোট ১৫টি অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে : নাশকতা কিনা খতিয়ে দেখার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

  • ডেস্ক :
  • আপডেট সময় ০৩:১১ অপরাহ্ন, শনিবার, ৬ জানুয়ারী ২০২৪
  • 71
অনলাইন ডেস্ক :  রাজধানীর গোপীবাগে বেনাপোল এক্সপ্রেস ট্রেনে অগ্নিকাণ্ডে হতাহতদের প্রতি সমবেদনা জানিয়ে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। শুক্রবার (৫ জানুয়ারি) রাতে প্রধানমন্ত্রীর সহকারী প্রেস সচিব এ বি এম সরওয়ার-ই-আলম সরকার এ তথ্য জানান। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা নাশকতা কি না-তা খতিয়ে দেখতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দিয়েছেন। তিনি নিহতদের আত্মার মাগফিরাত করেছেন এবং আহতদের চিকিৎসার জন্য দ্রুত ব্যবস্থা নিতে নির্দেশনা দিয়েছেন। ১৫৪ যাত্রী নিয়ে শুক্রবার (৫ জানুয়ারি) দুপুর ১টায় বেনাপোল থেকে ছেড়ে আসে ট্রেনটি। যাত্রাপথে ১১টি স্টেশনে বিরতি নেয় বেনাপোল এক্সপ্রেস। ট্রেনে কমলাপুরগামী যাত্রী ছিলেন ৪৯ জন। ট্রেন ঢাকায় পৌঁছানোর কথা রাত ৯টার দিকে। এর মধ্যে গোপীবাগ পৌঁছালে আগুনের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত দুই শিশুসহ চারজনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে ফায়ার সার্ভিস। দেশে গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যা ৬টা থেকে আজ শনিবার সকাল ১০টা পর্যন্ত ১৬ ঘণ্টায় সারা দেশে মোট ১৫টি অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। ট্রেনসহ ৬টি যানবাহন ছাড়াও পুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে ৯টি স্থাপনা, যার মধ্যে ৭টি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও ১টি উচ্চবিদ্যালয়। আজ দুপুরে গণমাধ্যমে পাঠানো বার্তায় এ তথ্য জানিয়েছে ফায়ার সার্ভিস সদর দপ্তর। ফায়ার সার্ভিস, বিজিবি ও র‍্যাবের প্রায় দুই ঘণ্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। এ ঘটনায় ট্রেন থেকে ৪ জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। আহত হয়েছে বেশ কয়েকজন। তাদের শেখ হাসিনা বার্ন ইউনিটে ভর্তি করা হয়েছে। এই ঘটনায় ঢাকা-মাওয়া রেলপথে আপাতত ট্রেন চলাচল বন্ধ রয়েছে। তবে ঢাকা-বিমানবন্দর রেলপথে স্বাভাবিকভাবে ট্রেন চলাচল চালু আছে।
সংস্থাটির পাঠানো তথ্য বলছে, গতকাল সন্ধ্যায় নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লার পঞ্চবটী মোড়ে একটি পিকআপে আগুন দেওয়া হয়। এরপর রাজধানীর গোপীবাগে রাত ৯টার পর আগুন দেওয়া হয় বেনাপোল এক্সপ্রেস ট্রেনে। এ আগুনে পুড়ে মারা যান চারজন।এদিন রাত ১২টার পরপর হবিগঞ্জের চুনারুঘাটের একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে আগুন দেওয়া হয়। এ ছাড়া রাত দেড়টার দিকে গাজীপুরের চন্দনা প্রাথমিক বিদ্যালয়ে আগুন দেয় দুর্বৃত্তরা। রাত পৌনে তিনটার দিকে গাজীপুরের টিএনটি আদর্শ উচ্চবিদ্যালয়ে আগুন দেওয়া হয়। অন্য দিকে সিলেটের সাতমাইল এলাকায় রাত পৌনে তিনটার দিকে একটি ট্রাকে আগুন দেওয়া হয়। একই সময় ফেনীর লালপুরে দুটি কাভার্ড ভ্যানে আগুন দেওয়া হয়। এ ছাড়া রাত তিনটার কিছু সময় আগে কক্সবাজারের রামুতে একটি স্থাপনায় আগুন দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে ফায়ার সার্ভিস সদর দপ্তর। আজ ভোরে আগুন দেওয়া হয় ময়মনসিংহের গফরগাঁও ও চট্টগ্রাম মহানগরীর নিশ্চিন্তপাড়ার একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে আগুন দেওয়া হয়। 
এছাড়াও আজ শনিবার সকালে সীতাকুণ্ডে একটি পিকআপ ভ্যানে ও শেরপুরের একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে আগুন দেওয়া হয়। এরপর সকাল আটটার দিকে গাজীপুরের কালিয়াকৈরের একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে আর সোয়া নয়টার দিকে ময়মনসিংহের নান্দাইলের একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে আগুন দেওয়া হয়।
ট্যাগস
জনপ্রিয় সংবাদ

র‌্যাবকে যেসব নির্দেশনা দিলেন নতুন ডিজি

গত ১৬ ঘণ্টায় সারাদেশে মোট ১৫টি অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে : নাশকতা কিনা খতিয়ে দেখার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

আপডেট সময় ০৩:১১ অপরাহ্ন, শনিবার, ৬ জানুয়ারী ২০২৪
অনলাইন ডেস্ক :  রাজধানীর গোপীবাগে বেনাপোল এক্সপ্রেস ট্রেনে অগ্নিকাণ্ডে হতাহতদের প্রতি সমবেদনা জানিয়ে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। শুক্রবার (৫ জানুয়ারি) রাতে প্রধানমন্ত্রীর সহকারী প্রেস সচিব এ বি এম সরওয়ার-ই-আলম সরকার এ তথ্য জানান। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা নাশকতা কি না-তা খতিয়ে দেখতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দিয়েছেন। তিনি নিহতদের আত্মার মাগফিরাত করেছেন এবং আহতদের চিকিৎসার জন্য দ্রুত ব্যবস্থা নিতে নির্দেশনা দিয়েছেন। ১৫৪ যাত্রী নিয়ে শুক্রবার (৫ জানুয়ারি) দুপুর ১টায় বেনাপোল থেকে ছেড়ে আসে ট্রেনটি। যাত্রাপথে ১১টি স্টেশনে বিরতি নেয় বেনাপোল এক্সপ্রেস। ট্রেনে কমলাপুরগামী যাত্রী ছিলেন ৪৯ জন। ট্রেন ঢাকায় পৌঁছানোর কথা রাত ৯টার দিকে। এর মধ্যে গোপীবাগ পৌঁছালে আগুনের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত দুই শিশুসহ চারজনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে ফায়ার সার্ভিস। দেশে গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যা ৬টা থেকে আজ শনিবার সকাল ১০টা পর্যন্ত ১৬ ঘণ্টায় সারা দেশে মোট ১৫টি অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। ট্রেনসহ ৬টি যানবাহন ছাড়াও পুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে ৯টি স্থাপনা, যার মধ্যে ৭টি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও ১টি উচ্চবিদ্যালয়। আজ দুপুরে গণমাধ্যমে পাঠানো বার্তায় এ তথ্য জানিয়েছে ফায়ার সার্ভিস সদর দপ্তর। ফায়ার সার্ভিস, বিজিবি ও র‍্যাবের প্রায় দুই ঘণ্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। এ ঘটনায় ট্রেন থেকে ৪ জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। আহত হয়েছে বেশ কয়েকজন। তাদের শেখ হাসিনা বার্ন ইউনিটে ভর্তি করা হয়েছে। এই ঘটনায় ঢাকা-মাওয়া রেলপথে আপাতত ট্রেন চলাচল বন্ধ রয়েছে। তবে ঢাকা-বিমানবন্দর রেলপথে স্বাভাবিকভাবে ট্রেন চলাচল চালু আছে।
সংস্থাটির পাঠানো তথ্য বলছে, গতকাল সন্ধ্যায় নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লার পঞ্চবটী মোড়ে একটি পিকআপে আগুন দেওয়া হয়। এরপর রাজধানীর গোপীবাগে রাত ৯টার পর আগুন দেওয়া হয় বেনাপোল এক্সপ্রেস ট্রেনে। এ আগুনে পুড়ে মারা যান চারজন।এদিন রাত ১২টার পরপর হবিগঞ্জের চুনারুঘাটের একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে আগুন দেওয়া হয়। এ ছাড়া রাত দেড়টার দিকে গাজীপুরের চন্দনা প্রাথমিক বিদ্যালয়ে আগুন দেয় দুর্বৃত্তরা। রাত পৌনে তিনটার দিকে গাজীপুরের টিএনটি আদর্শ উচ্চবিদ্যালয়ে আগুন দেওয়া হয়। অন্য দিকে সিলেটের সাতমাইল এলাকায় রাত পৌনে তিনটার দিকে একটি ট্রাকে আগুন দেওয়া হয়। একই সময় ফেনীর লালপুরে দুটি কাভার্ড ভ্যানে আগুন দেওয়া হয়। এ ছাড়া রাত তিনটার কিছু সময় আগে কক্সবাজারের রামুতে একটি স্থাপনায় আগুন দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে ফায়ার সার্ভিস সদর দপ্তর। আজ ভোরে আগুন দেওয়া হয় ময়মনসিংহের গফরগাঁও ও চট্টগ্রাম মহানগরীর নিশ্চিন্তপাড়ার একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে আগুন দেওয়া হয়। 
এছাড়াও আজ শনিবার সকালে সীতাকুণ্ডে একটি পিকআপ ভ্যানে ও শেরপুরের একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে আগুন দেওয়া হয়। এরপর সকাল আটটার দিকে গাজীপুরের কালিয়াকৈরের একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে আর সোয়া নয়টার দিকে ময়মনসিংহের নান্দাইলের একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে আগুন দেওয়া হয়।