ঢাকা , রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ১ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বাংলাদেশের নির্বাচন ঘিরে জাতিসংঘ বিশেষজ্ঞের ক্ষোভ

  • ডেস্ক :
  • আপডেট সময় ০৫:২৫ অপরাহ্ন, শনিবার, ৬ জানুয়ারী ২০২৪
  • 18

অনলাইন ডেস্ক : বাংলাদেশের নির্বাচন ঘিরে ‘দমনমূলক পরিবেশ’ নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন জাতিসংঘের শান্তিপূর্ণ সভা–সমাবেশের স্বাধীনতাবিষয়ক বিশেষ র‍্যাপোর্টিয়ার ক্লেমেন্ট ভৌল। শুক্রবার (৫ জানুয়ারি) নিজের অফিসিয়াল এক্স (আগের টুইটার) অ্যাকাউন্ট থেকে তিনি এ প্রতিক্রিয়া জানান।

প্রথম পোস্টে তিনি লিখেন, বাংলাদেশে রাজনৈতিক কর্মী এবং সুশীল সমাজের ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে দমন-পীড়ন বন্ধ করার জন্য কর্তৃপক্ষের প্রতি আমাদের একাধিক আহ্বান সত্ত্বেও আসন্ন নির্বাচনকে ঘিরে দমনমূলক পরিবেশ নিয়ে আমি গভীরভাবে ক্ষুব্ধ।

পরে পোস্টে তিনি লিখেন, ভিন্নমতকে নীরব করতে সুশীল সমাজ সংগঠন, বিক্ষোভকারী ও বিরোধীদের বিরুদ্ধে পুলিশকে অতিরিক্ত ব্যবহার, সহিংসতা এবং অপরাধীকরণ থেকে বিরত থাকার জন্য আমার আগের আহ্বানগুলো পুনর্ব্যক্ত করছি।

নির্বাচনের আগে, নির্বাচন চলাকালীন এবং নির্বাচনের পর শান্তিপূর্ণ সমাবেশ ও সমিতির অধিকার এবং রাজনৈতিক অংশগ্রহণের অধিকার নিশ্চিত করার দায়িত্ব রয়েছে কর্তৃপক্ষের।

ট্যাগস
জনপ্রিয় সংবাদ

শনিবার  ডিএমপি’র  কমিশনার হাবিবুর রহমান জানিয়েছেন : পহেলা বৈশাখে জঙ্গি হামলার আশঙ্কা নেই

বাংলাদেশের নির্বাচন ঘিরে জাতিসংঘ বিশেষজ্ঞের ক্ষোভ

আপডেট সময় ০৫:২৫ অপরাহ্ন, শনিবার, ৬ জানুয়ারী ২০২৪

অনলাইন ডেস্ক : বাংলাদেশের নির্বাচন ঘিরে ‘দমনমূলক পরিবেশ’ নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন জাতিসংঘের শান্তিপূর্ণ সভা–সমাবেশের স্বাধীনতাবিষয়ক বিশেষ র‍্যাপোর্টিয়ার ক্লেমেন্ট ভৌল। শুক্রবার (৫ জানুয়ারি) নিজের অফিসিয়াল এক্স (আগের টুইটার) অ্যাকাউন্ট থেকে তিনি এ প্রতিক্রিয়া জানান।

প্রথম পোস্টে তিনি লিখেন, বাংলাদেশে রাজনৈতিক কর্মী এবং সুশীল সমাজের ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে দমন-পীড়ন বন্ধ করার জন্য কর্তৃপক্ষের প্রতি আমাদের একাধিক আহ্বান সত্ত্বেও আসন্ন নির্বাচনকে ঘিরে দমনমূলক পরিবেশ নিয়ে আমি গভীরভাবে ক্ষুব্ধ।

পরে পোস্টে তিনি লিখেন, ভিন্নমতকে নীরব করতে সুশীল সমাজ সংগঠন, বিক্ষোভকারী ও বিরোধীদের বিরুদ্ধে পুলিশকে অতিরিক্ত ব্যবহার, সহিংসতা এবং অপরাধীকরণ থেকে বিরত থাকার জন্য আমার আগের আহ্বানগুলো পুনর্ব্যক্ত করছি।

নির্বাচনের আগে, নির্বাচন চলাকালীন এবং নির্বাচনের পর শান্তিপূর্ণ সমাবেশ ও সমিতির অধিকার এবং রাজনৈতিক অংশগ্রহণের অধিকার নিশ্চিত করার দায়িত্ব রয়েছে কর্তৃপক্ষের।