ঢাকা , সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪, ৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ভোট চুরি করলে মানুষ কিন্তু ঠিকই ধরে ফেলে : প্রধানমন্ত্রী

  • ডেস্ক :
  • আপডেট সময় ০৭:১৯ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৪ জানুয়ারী ২০২৪
  • 28

সিনিয়র রিপোর্টার : আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘৭৫’ পরবর্তী নির্বাচন যেন না হয় সে চক্রান্ত হয়েছিল। নির্বাচন বানচালে বিএনপির সমস্ত ষড়যন্ত্র জনগণ ভোট দিয়ে ধুলিস্যাৎ করে দিয়েছে। যতবার নির্বাচন বানচালের করতে চেয়েছে বাংলাদেশের মানুষ কিন্তু তাতে সাড়া দেয়নি। আসলে ভোট চুরি করলে মানুষ কিন্তু ঠিকই ধরে ফেলে।

রবিবার (১৪ জানুয়ারি) গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত মতবিনিময় সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘১৯৯৬ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারির খালেদা জিয়া ক্ষমতায় থেকে নির্বাচন করেছিল। তখন সারাদেশে প্রশাসন, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী, গোয়েন্দা বাহিনী সবাইকে নামিয়ে নির্বাচন করেছিল। সে নির্বাচনে মাত্র ২১শতাংশ ভোট পরেছিলো। জনগণ তা মেনে নেয়নি, যে কারণে আন্দোলন হয়। তখন নাকে খত দিয়ে তাদের বিদায় নিতে হয়েছিলো। ২০০৮ সালের নির্বাচনে শোচনীয় পরাজয়ের পর থেকে বিএনপির লুটপাট, দুঃশাসন, সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদের কারণে তাদের ওপর মানুষ ছিলো বীতশ্রদ্ধ (আস্থাহীন)।

৭ জানুয়ারির নির্বাচনে জনগণ ও গণতন্ত্রের বিজয় হয়েছে উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, আওয়ামী লীগ যখন ক্ষমতায় এসেছে তখনই উন্নতি হয়েছে। জনগণের ভোটের অধিকার নিশ্চিত করেছে আওয়ামী লীগ। করোনা ভাইরাসের অতিমারী ও রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের কারণে জিনিসের দাম বেড়েছে। আবার নতুন করে হামলা শুরু হয়েছে। যে কারণে হয়ত সামনে আরও দুর্দিন আসতে পারে। সব ষড়যন্ত্র অতিক্রম করে এগিয়ে যেতে হবে।

বিএনপিকে উদ্দেশ্য করে আওয়ামী লীগ সভাপতি বলেন, যারা গণতন্ত্রের ‘গ’ বোঝে না। এমনকি বানানও করতে পারে না, তারা এখন গণতন্ত্রের জন্য আন্দোলন করে। তাদের আন্দোলন মানুষ পুড়িয়ে মারা, তারা জানে জ্বালাও-পোড়াও। জীবন্ত মানুষকে পুড়িয়ে পুড়িয়ে মারা। নির্বাচন ঠেকাও আন্দোলন করতে গিয়ে তারা বাসে, লঞ্চে ও রেলে আগুন দিয়েছে।

অগ্নিসন্ত্রাসের ঘটনায় জড়িতদের কেউ ছাড় পাবে না জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, তাদের ডাকে কেউ সাড়া দেয়নি। যারা এই জঘন্য কাজ করেছে তাদের কোনো ছাড় নেই। জ্বালাও-পোড়াওয়ের হুকুমদাতা তাদের আমরা গ্রেপ্তার করেছি, তাদের বিরুদ্ধে যথাযথ আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে। আর যেন ভবিষ্যতে কেউ এমন জঘন্য কাজ না করতে পারে সেটাই আমরা চাই।  

ট্যাগস
জনপ্রিয় সংবাদ

র‌্যাবকে যেসব নির্দেশনা দিলেন নতুন ডিজি

ভোট চুরি করলে মানুষ কিন্তু ঠিকই ধরে ফেলে : প্রধানমন্ত্রী

আপডেট সময় ০৭:১৯ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৪ জানুয়ারী ২০২৪

সিনিয়র রিপোর্টার : আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘৭৫’ পরবর্তী নির্বাচন যেন না হয় সে চক্রান্ত হয়েছিল। নির্বাচন বানচালে বিএনপির সমস্ত ষড়যন্ত্র জনগণ ভোট দিয়ে ধুলিস্যাৎ করে দিয়েছে। যতবার নির্বাচন বানচালের করতে চেয়েছে বাংলাদেশের মানুষ কিন্তু তাতে সাড়া দেয়নি। আসলে ভোট চুরি করলে মানুষ কিন্তু ঠিকই ধরে ফেলে।

রবিবার (১৪ জানুয়ারি) গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত মতবিনিময় সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘১৯৯৬ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারির খালেদা জিয়া ক্ষমতায় থেকে নির্বাচন করেছিল। তখন সারাদেশে প্রশাসন, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী, গোয়েন্দা বাহিনী সবাইকে নামিয়ে নির্বাচন করেছিল। সে নির্বাচনে মাত্র ২১শতাংশ ভোট পরেছিলো। জনগণ তা মেনে নেয়নি, যে কারণে আন্দোলন হয়। তখন নাকে খত দিয়ে তাদের বিদায় নিতে হয়েছিলো। ২০০৮ সালের নির্বাচনে শোচনীয় পরাজয়ের পর থেকে বিএনপির লুটপাট, দুঃশাসন, সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদের কারণে তাদের ওপর মানুষ ছিলো বীতশ্রদ্ধ (আস্থাহীন)।

৭ জানুয়ারির নির্বাচনে জনগণ ও গণতন্ত্রের বিজয় হয়েছে উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, আওয়ামী লীগ যখন ক্ষমতায় এসেছে তখনই উন্নতি হয়েছে। জনগণের ভোটের অধিকার নিশ্চিত করেছে আওয়ামী লীগ। করোনা ভাইরাসের অতিমারী ও রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের কারণে জিনিসের দাম বেড়েছে। আবার নতুন করে হামলা শুরু হয়েছে। যে কারণে হয়ত সামনে আরও দুর্দিন আসতে পারে। সব ষড়যন্ত্র অতিক্রম করে এগিয়ে যেতে হবে।

বিএনপিকে উদ্দেশ্য করে আওয়ামী লীগ সভাপতি বলেন, যারা গণতন্ত্রের ‘গ’ বোঝে না। এমনকি বানানও করতে পারে না, তারা এখন গণতন্ত্রের জন্য আন্দোলন করে। তাদের আন্দোলন মানুষ পুড়িয়ে মারা, তারা জানে জ্বালাও-পোড়াও। জীবন্ত মানুষকে পুড়িয়ে পুড়িয়ে মারা। নির্বাচন ঠেকাও আন্দোলন করতে গিয়ে তারা বাসে, লঞ্চে ও রেলে আগুন দিয়েছে।

অগ্নিসন্ত্রাসের ঘটনায় জড়িতদের কেউ ছাড় পাবে না জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, তাদের ডাকে কেউ সাড়া দেয়নি। যারা এই জঘন্য কাজ করেছে তাদের কোনো ছাড় নেই। জ্বালাও-পোড়াওয়ের হুকুমদাতা তাদের আমরা গ্রেপ্তার করেছি, তাদের বিরুদ্ধে যথাযথ আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে। আর যেন ভবিষ্যতে কেউ এমন জঘন্য কাজ না করতে পারে সেটাই আমরা চাই।