ঢাকা , সোমবার, ১৫ জুলাই ২০২৪, ৩১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

 ড. ইউনূসের প্রশ্ন মামলা কি সরকার করলো, শ্রমিক তো কোনো মামলা করেনি

  • ডেস্ক :
  • আপডেট সময় ০২:৩৮ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৮ জানুয়ারী ২০২৪
  • 128
অনলাইন ডেস্ক  : নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ ড. মুহাম্মদ ইউনূস বলেছেন, আমার দিক থেকে একটা বিষয় পরিষ্কার করা দরকার, সরকার বারবার বলছে, সকল পর্যায়ে থেকে- এই মামলা সরকার করেনি। কিন্তু আপনারা (সাংবাদিক) তো সাক্ষী। আপনারা তো কোনো কিছু বলছেন না। এটা কি সরকার করলো, নাকি শ্রমিক করলো? জবাবটা আমাকে দেন। রোববার (২৮ জানুয়ারি) শ্রম আইন লঙ্ঘনের মামলায় সাজার রায় চ্যালেঞ্জ করে আপিল করার পর সাংবাদিকদের এ কথা বলেন তিনি।
ড. মুহাম্মদ ইউনূস সাংবাদিকদের আরও বলেন, কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তর তো সরকারি, সরকারের অধীন। শ্রমিক তো কোনো মামলা করেনি, সেটা আপনারা বলেন। এর আগে শ্রম আপিল ট্রাইব্যুনালে আত্মসমর্পণ করে মামলা নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত জামিন পেয়েছেন ড. ইউনূসসহ চারজন। শ্রম আইন লঙ্ঘনের মামলায় ৬ মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ডের রায়ের বিরুদ্ধে ২৫ যুক্তি দেখান তিনি।
গ্রামীণ ব্যাংক নিয়ে ড. ইউনুস বলেন, এটি আমাদের একটা স্বপ্ন ছিল। আমরা পৃথিবীকে বদলাতে চাই। দারিদ্র্যকে মুছে ফেলতে চাই। এটাই ছিল আমাদের স্বপ্ন। যে স্বপ্ন বাস্তবায়নে আমরা পেছনে লেগেছিলাম। আমরা বলেছিলাম যে চাকরির পেছনে মানুষ ঘুরবে না, চাকরি মানুষের সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ নয়। মানুষ হলো একজন উদ্যোক্তা।
ট্যাগস
জনপ্রিয় সংবাদ

আমার বাসায় পিয়ন ৪০০ কোটি টাকার মালিক, তাকেও ধরা হয়েছে : প্রধানমন্ত্রী

 ড. ইউনূসের প্রশ্ন মামলা কি সরকার করলো, শ্রমিক তো কোনো মামলা করেনি

আপডেট সময় ০২:৩৮ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৮ জানুয়ারী ২০২৪
অনলাইন ডেস্ক  : নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ ড. মুহাম্মদ ইউনূস বলেছেন, আমার দিক থেকে একটা বিষয় পরিষ্কার করা দরকার, সরকার বারবার বলছে, সকল পর্যায়ে থেকে- এই মামলা সরকার করেনি। কিন্তু আপনারা (সাংবাদিক) তো সাক্ষী। আপনারা তো কোনো কিছু বলছেন না। এটা কি সরকার করলো, নাকি শ্রমিক করলো? জবাবটা আমাকে দেন। রোববার (২৮ জানুয়ারি) শ্রম আইন লঙ্ঘনের মামলায় সাজার রায় চ্যালেঞ্জ করে আপিল করার পর সাংবাদিকদের এ কথা বলেন তিনি।
ড. মুহাম্মদ ইউনূস সাংবাদিকদের আরও বলেন, কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তর তো সরকারি, সরকারের অধীন। শ্রমিক তো কোনো মামলা করেনি, সেটা আপনারা বলেন। এর আগে শ্রম আপিল ট্রাইব্যুনালে আত্মসমর্পণ করে মামলা নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত জামিন পেয়েছেন ড. ইউনূসসহ চারজন। শ্রম আইন লঙ্ঘনের মামলায় ৬ মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ডের রায়ের বিরুদ্ধে ২৫ যুক্তি দেখান তিনি।
গ্রামীণ ব্যাংক নিয়ে ড. ইউনুস বলেন, এটি আমাদের একটা স্বপ্ন ছিল। আমরা পৃথিবীকে বদলাতে চাই। দারিদ্র্যকে মুছে ফেলতে চাই। এটাই ছিল আমাদের স্বপ্ন। যে স্বপ্ন বাস্তবায়নে আমরা পেছনে লেগেছিলাম। আমরা বলেছিলাম যে চাকরির পেছনে মানুষ ঘুরবে না, চাকরি মানুষের সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ নয়। মানুষ হলো একজন উদ্যোক্তা।