ঢাকা , সোমবার, ১৫ জুলাই ২০২৪, ৩১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

পররাষ্ট্রমন্ত্রীর ভারত সফরের লক্ষ্য কী?

  • ডেস্ক :
  • আপডেট সময় ০৪:১৪ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
  • 37

অনলাইন ডেস্ক : পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিসেবে নতুন দায়িত্ব পাওয়ার পর আগামীকাল (৭ ফেব্রুয়ারি) ভারত সফরে যাচ্ছেন ড. হাসান মাহমুদ। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব পাওয়ার পর এটি তার প্রথম দ্বিপক্ষীয় সফর।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম হিন্দুস্তান টাইমসের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, ভারত-বাংলাদেশ সম্পর্ককে সামনে আরো জোরদার করা এবং ভবিষ্যত দ্বিপক্ষীয় সহযোগিতা বৃদ্ধিতে কোশলগত পরিকল্পনা ঠিক করা এই সফরের প্রধান লক্ষ্য।

প্রতিবেদনে বলা হয়, ‘সফরে তিনি ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শংকরের সাথে দেখা করবেন। আলোচনার পাশাপাশি হাসান মাহমুদ নয়াদিল্লিতে একটি থিঙ্ক ট্যাঙ্কে বক্তৃতা দেবেন। সাম্প্রতিক বছরগুলোতে বাণিজ্য, অর্থনৈতিক ও জ্বালানি সংযোগের ব্যাপারে ভারত-বাংলাদেশ যে কাজ করেছে তা নিয়ে আলোচনা করা হবে এই সফরে। পাশাপাশি ভবিষ্যত সহযোগিতার পরিকল্পনা নিয়েও এই সফরে আলোচনা করা হবে।’

বৃহস্পতিবার (১১ জানুয়ারি) পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পান হাসান মাহমুদ। এরপর শনিবার (২০ জানুয়ারি) উগান্ডার রাজধানী কাম্পালায় জোট-নিরপেক্ষ আন্দোলন (ন্যাম) সম্মেলনের সময় এস জয়শংকর হাসান মাহমুদের সাথে বৈঠক করেন। সম্পর্ক জোরদারের ওপর জোর দিয়ে হাসান মাহমুদকে বাংলাদেশের নতুন পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিসেবে অভিনন্দন জানান জয়শংকর।

এর আগে এস. জয়শংকর ভারতের ‘প্রতিবেশী প্রথম নীতি’ এবং ভারত ও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার মধ্যে সংযোগ জোরদার করার লক্ষ্যে নয়াদিল্লির ‘অ্যাক্ট ইস্ট পলিসি’ এর একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশীদার হিসাবে বাংলাদেশের তাত্পর্যের উপর জোর দিয়েছিলেন। বাংলাদেশের সাথে ভারতের সম্পর্ককে ‘৩৬০ ডিগ্রি অংশীদারিত্ব’ হিসাবে বর্ণনা করে তিনি দুই দেশের মধ্যে সম্পর্কের কৌশলগত গুরুত্ব তুলে ধরেন।

ট্যাগস
জনপ্রিয় সংবাদ

আমার বাসায় পিয়ন ৪০০ কোটি টাকার মালিক, তাকেও ধরা হয়েছে : প্রধানমন্ত্রী

পররাষ্ট্রমন্ত্রীর ভারত সফরের লক্ষ্য কী?

আপডেট সময় ০৪:১৪ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

অনলাইন ডেস্ক : পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিসেবে নতুন দায়িত্ব পাওয়ার পর আগামীকাল (৭ ফেব্রুয়ারি) ভারত সফরে যাচ্ছেন ড. হাসান মাহমুদ। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব পাওয়ার পর এটি তার প্রথম দ্বিপক্ষীয় সফর।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম হিন্দুস্তান টাইমসের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, ভারত-বাংলাদেশ সম্পর্ককে সামনে আরো জোরদার করা এবং ভবিষ্যত দ্বিপক্ষীয় সহযোগিতা বৃদ্ধিতে কোশলগত পরিকল্পনা ঠিক করা এই সফরের প্রধান লক্ষ্য।

প্রতিবেদনে বলা হয়, ‘সফরে তিনি ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শংকরের সাথে দেখা করবেন। আলোচনার পাশাপাশি হাসান মাহমুদ নয়াদিল্লিতে একটি থিঙ্ক ট্যাঙ্কে বক্তৃতা দেবেন। সাম্প্রতিক বছরগুলোতে বাণিজ্য, অর্থনৈতিক ও জ্বালানি সংযোগের ব্যাপারে ভারত-বাংলাদেশ যে কাজ করেছে তা নিয়ে আলোচনা করা হবে এই সফরে। পাশাপাশি ভবিষ্যত সহযোগিতার পরিকল্পনা নিয়েও এই সফরে আলোচনা করা হবে।’

বৃহস্পতিবার (১১ জানুয়ারি) পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পান হাসান মাহমুদ। এরপর শনিবার (২০ জানুয়ারি) উগান্ডার রাজধানী কাম্পালায় জোট-নিরপেক্ষ আন্দোলন (ন্যাম) সম্মেলনের সময় এস জয়শংকর হাসান মাহমুদের সাথে বৈঠক করেন। সম্পর্ক জোরদারের ওপর জোর দিয়ে হাসান মাহমুদকে বাংলাদেশের নতুন পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিসেবে অভিনন্দন জানান জয়শংকর।

এর আগে এস. জয়শংকর ভারতের ‘প্রতিবেশী প্রথম নীতি’ এবং ভারত ও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার মধ্যে সংযোগ জোরদার করার লক্ষ্যে নয়াদিল্লির ‘অ্যাক্ট ইস্ট পলিসি’ এর একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশীদার হিসাবে বাংলাদেশের তাত্পর্যের উপর জোর দিয়েছিলেন। বাংলাদেশের সাথে ভারতের সম্পর্ককে ‘৩৬০ ডিগ্রি অংশীদারিত্ব’ হিসাবে বর্ণনা করে তিনি দুই দেশের মধ্যে সম্পর্কের কৌশলগত গুরুত্ব তুলে ধরেন।