ঢাকা , রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ১ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ভাষা শহীদদের শ্রদ্ধা জানাতে প্রস্তুতি চলছে শহীদ মিনারের

  • ডেস্ক :
  • আপডেট সময় ০৯:৩৩ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
  • 22
অনলাইন ডেস্ক  : ঘনিয়ে আসছে একুশে ফেব্রুয়ারি ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস। একুশে ফেব্রুয়ারির প্রথম প্রহরে রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রীসহ শ্রদ্ধা জানাবেন অনেকেই। ওই দিন ভাষাশহীদদের শ্রদ্ধা জানাতে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে ঢল নামবে সাধারণ মানুষের। এরই মধ্যে শুরু হয়েছে প্রস্তুতি। রবিবার (১৮ ফেব্রুয়ারি) মিনারের পাদদেশে রঙের কাজ করছেন কয়েকজন শ্রমিক। এরই মধ্যে ধোয়ামোছার কাজ শেষ হয়েছে। রঙের কাজ শেষ হলেই আলপনার কাজ শুরু হবে। এছাড়া শহীদ মিনারের চারপাশে বাঁশ দিয়ে ব্যারিকেড তৈরি করা হয়েছে। যাতে শ্রদ্ধা নিবেদনের সময় মানুষ সারিবদ্ধভাবে দাঁড়িয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করতে পারে।
মূলত শহীদ মিনারের সাজসজ্জা ও একুশে ফেব্রুয়ারির কর্মসূচি বাস্তবায়ন করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। শহীদ মিনারের পাদদেশ, রাস্তায় আলপনা আঁকা ও সড়কের পাশের রাস্তায় বিভিন্ন উক্তি, বাণী লেখার কাজ করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা।
কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার এলাকায় দায়িত্বরত আনসার সদস্যরা বলেন, ধোয়ামোছার কাজ শেষে  চলছে রঙের কাজ।  চারুকলা এক অধ্যাপক বলেন, মূলত সবকিছু ব্যবস্থাপনার কাজ বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ করে থাকে। আমরা চারুকলা অনুষদের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা মিলে আলপনাসহ সাজসজ্জার কাজ করে থাকি। আগামী ২০ ফেব্রুয়ারির মধ্যে সব কাজ শেষ হবে।
ট্যাগস
জনপ্রিয় সংবাদ

শনিবার  ডিএমপি’র  কমিশনার হাবিবুর রহমান জানিয়েছেন : পহেলা বৈশাখে জঙ্গি হামলার আশঙ্কা নেই

ভাষা শহীদদের শ্রদ্ধা জানাতে প্রস্তুতি চলছে শহীদ মিনারের

আপডেট সময় ০৯:৩৩ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
অনলাইন ডেস্ক  : ঘনিয়ে আসছে একুশে ফেব্রুয়ারি ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস। একুশে ফেব্রুয়ারির প্রথম প্রহরে রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রীসহ শ্রদ্ধা জানাবেন অনেকেই। ওই দিন ভাষাশহীদদের শ্রদ্ধা জানাতে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে ঢল নামবে সাধারণ মানুষের। এরই মধ্যে শুরু হয়েছে প্রস্তুতি। রবিবার (১৮ ফেব্রুয়ারি) মিনারের পাদদেশে রঙের কাজ করছেন কয়েকজন শ্রমিক। এরই মধ্যে ধোয়ামোছার কাজ শেষ হয়েছে। রঙের কাজ শেষ হলেই আলপনার কাজ শুরু হবে। এছাড়া শহীদ মিনারের চারপাশে বাঁশ দিয়ে ব্যারিকেড তৈরি করা হয়েছে। যাতে শ্রদ্ধা নিবেদনের সময় মানুষ সারিবদ্ধভাবে দাঁড়িয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করতে পারে।
মূলত শহীদ মিনারের সাজসজ্জা ও একুশে ফেব্রুয়ারির কর্মসূচি বাস্তবায়ন করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। শহীদ মিনারের পাদদেশ, রাস্তায় আলপনা আঁকা ও সড়কের পাশের রাস্তায় বিভিন্ন উক্তি, বাণী লেখার কাজ করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা।
কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার এলাকায় দায়িত্বরত আনসার সদস্যরা বলেন, ধোয়ামোছার কাজ শেষে  চলছে রঙের কাজ।  চারুকলা এক অধ্যাপক বলেন, মূলত সবকিছু ব্যবস্থাপনার কাজ বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ করে থাকে। আমরা চারুকলা অনুষদের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা মিলে আলপনাসহ সাজসজ্জার কাজ করে থাকি। আগামী ২০ ফেব্রুয়ারির মধ্যে সব কাজ শেষ হবে।