ঢাকা , রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪, ৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

জিআই পণ্যের তালিকা চাইলেন হাইকোর্ট

  • ডেস্ক :
  • আপডেট সময় ০১:৩৬ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২০ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
  • 29

সিনিয়র রিপোর্টার : জাতীয়-আন্তর্জাতিক ভৌগোলিক নির্দেশকের (জিআই পণ্য) তালিকা চেয়েছেন হাইকোর্ট। সরকারের সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়কে আগামী ১৯ মার্চের মধ্যে এই তালিকা প্রতিবেদন আকারে জমা দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

সোমবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) এক রিট আবেদনের প্রাথমিক শুনানি শেষে বিচারপতি খুরশীদ আলম সরকার ও সরদার মোহাম্মদ রাশেদ জাহাঙ্গীর দ্বৈত বেঞ্চ এই আদেশ দেন।

একইসঙ্গে জিআই পণ্যের তালিকা তৈরি ও সংরক্ষণের নিষ্ক্রিয়তা কেন অবৈধ নয়, জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন উচ্চ আদালত।

রিটকারী আইনজীবী সারওয়াত সিরাজ শুক্লা বলেন, টাঙ্গাইলের তাঁতের শাড়ি ও সুন্দবনের মধুসহ যেসব বাংলাদেশি জিআই পণ্য ভারত নিবন্ধন করেছে, তার বিরুদ্ধে ৪ এপ্রিল পর্যন্ত আপিলের সুযোগ আছে।

এর আগে, রবিবার (১৮ ফেব্রুয়ারি) বাংলাদেশের টাঙ্গাইলের শাড়ি ভারতের পশ্চিমবঙ্গের ভৌগোলিক নির্দেশক (জিআই) হিসেবে নিবন্ধিত হওয়ার ঘটনায় লিগ্যাল নোটিশ পাঠানো হয়েছে। সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার এম. আশরাফুল ইসলাম সংশ্লিষ্টদের প্রতি এই লিগ্যাল নোটিশ পাঠান।

প্রসঙ্গত- ২০১৬ সালে জামদানি শাড়িকে বাংলাদেশে প্রথম জিআই পণ্য হিসেবে স্বীকৃতি দেয়া হয়। এরপর স্বীকৃতি পায় আরও ২০টি পণ্য। সম্প্রতি অনুমোদিত হয় টাঙ্গাইল শাড়ি, নরসিংদীর অমৃতসাগর কলা ও গোপালগঞ্জের রসগোল্লা। ১২ ফেব্রুয়ারি নতুন ৪টি জিআই পণ্যের জার্নাল প্রকাশিত হওয়ায় এখন মোট অনুমোদিত জিআই পণ্যের সংখ্যা ২৮টি।

ট্যাগস
জনপ্রিয় সংবাদ

র‌্যাবকে যেসব নির্দেশনা দিলেন নতুন ডিজি

জিআই পণ্যের তালিকা চাইলেন হাইকোর্ট

আপডেট সময় ০১:৩৬ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২০ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

সিনিয়র রিপোর্টার : জাতীয়-আন্তর্জাতিক ভৌগোলিক নির্দেশকের (জিআই পণ্য) তালিকা চেয়েছেন হাইকোর্ট। সরকারের সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়কে আগামী ১৯ মার্চের মধ্যে এই তালিকা প্রতিবেদন আকারে জমা দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

সোমবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) এক রিট আবেদনের প্রাথমিক শুনানি শেষে বিচারপতি খুরশীদ আলম সরকার ও সরদার মোহাম্মদ রাশেদ জাহাঙ্গীর দ্বৈত বেঞ্চ এই আদেশ দেন।

একইসঙ্গে জিআই পণ্যের তালিকা তৈরি ও সংরক্ষণের নিষ্ক্রিয়তা কেন অবৈধ নয়, জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন উচ্চ আদালত।

রিটকারী আইনজীবী সারওয়াত সিরাজ শুক্লা বলেন, টাঙ্গাইলের তাঁতের শাড়ি ও সুন্দবনের মধুসহ যেসব বাংলাদেশি জিআই পণ্য ভারত নিবন্ধন করেছে, তার বিরুদ্ধে ৪ এপ্রিল পর্যন্ত আপিলের সুযোগ আছে।

এর আগে, রবিবার (১৮ ফেব্রুয়ারি) বাংলাদেশের টাঙ্গাইলের শাড়ি ভারতের পশ্চিমবঙ্গের ভৌগোলিক নির্দেশক (জিআই) হিসেবে নিবন্ধিত হওয়ার ঘটনায় লিগ্যাল নোটিশ পাঠানো হয়েছে। সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার এম. আশরাফুল ইসলাম সংশ্লিষ্টদের প্রতি এই লিগ্যাল নোটিশ পাঠান।

প্রসঙ্গত- ২০১৬ সালে জামদানি শাড়িকে বাংলাদেশে প্রথম জিআই পণ্য হিসেবে স্বীকৃতি দেয়া হয়। এরপর স্বীকৃতি পায় আরও ২০টি পণ্য। সম্প্রতি অনুমোদিত হয় টাঙ্গাইল শাড়ি, নরসিংদীর অমৃতসাগর কলা ও গোপালগঞ্জের রসগোল্লা। ১২ ফেব্রুয়ারি নতুন ৪টি জিআই পণ্যের জার্নাল প্রকাশিত হওয়ায় এখন মোট অনুমোদিত জিআই পণ্যের সংখ্যা ২৮টি।