ঢাকা , শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৪, ৬ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

লিবিয়ায় আরও ২৮ বাংলাদেশি ডাক্তার-নার্স নিয়োগ পেলেন

  • ডেস্ক :
  • আপডেট সময় ০৩:৩৬ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
  • 36
অনলাইন ডেস্ক :  লিবিয়ার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অধীনে দ্বিতীয় পর্যায়ে নিয়োগ পাওয়া ২৮ বাংলাদেশি ডাক্তার-নার্স সম্প্রতি ত্রিপলিতে পৌঁছেছেন। মঙ্গলবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) লিবিয়ায় নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মেজর জেনারেল আবুল হাসনাত মুহাম্মদ খায়রুল বাশার তাদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন।
সাক্ষাৎকালে রাষ্ট্রদূত সদ্য আগত বাংলাদেশি পেশাজীবীদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন। এসময় রাষ্ট্রদূত লিবিয়ায় নিয়োগপ্রাপ্ত সব ডাক্তার-নার্সকে স্বাগত জানান। তিনি তাদের দক্ষতা ও পেশাদারিত্বের সঙ্গে কাজ করে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করার আহ্বান জানান। রাষ্ট্রদূত আগত পেশাজীবীদের লিবিয়ার সার্বিক পরিস্থিতি সম্পর্কে অবহিত করেন এবং প্রয়োজনীয় সতর্কতা অবলম্বনের পরামর্শ দেন। এ ছাড়া ভাষাগত দক্ষতাসহ অন্যান্য চ্যালেঞ্জ ধৈর্যের সঙ্গে মোকাবিলা করার জন্য তিনি তাদের অনুরোধ জানান।
বৈঠকে রাষ্ট্রদূত লিবিয়ার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন বিভিন্ন হাসপাতালে প্রথম পর্যায়ে নিয়োগপ্রাপ্ত বাংলাদেশি ডাক্তার-নার্সদের বেতন-ভাতা ও অন্যান্য সুযোগ-সুবিধা নিশ্চিত করতে দূতাবাসের নেওয়া বিভিন্ন পদক্ষেপ সম্পর্কে অবহিত করেন। দূতাবাস বর্তমানে লিবিয়ার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এবং বিভিন্ন হাসপাতালসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সঙ্গে নিরবচ্ছিন্নভাবে কাজ করে যাচ্ছে বলে জানান রাষ্ট্রদূত। রাষ্ট্রদূত নতুন আগত পেশাজীবীদের লিবিয়ায় কর্মকালের সফলতা কামনা করেন এবং যেকোনো সমস্যা সমাধানে দূতাবাসের পূর্ণ সহযোগিতার আশ্বাস দেন।
ট্যাগস
জনপ্রিয় সংবাদ

বাংলাদেশে আবারো আশ্রয় নিল ২৪ জন এখন পর্যন্ত সর্বমোট ২৮৫ জন সীমান্তরক্ষী বিজিপি সদস্য অবস্থান করছে

লিবিয়ায় আরও ২৮ বাংলাদেশি ডাক্তার-নার্স নিয়োগ পেলেন

আপডেট সময় ০৩:৩৬ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
অনলাইন ডেস্ক :  লিবিয়ার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অধীনে দ্বিতীয় পর্যায়ে নিয়োগ পাওয়া ২৮ বাংলাদেশি ডাক্তার-নার্স সম্প্রতি ত্রিপলিতে পৌঁছেছেন। মঙ্গলবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) লিবিয়ায় নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মেজর জেনারেল আবুল হাসনাত মুহাম্মদ খায়রুল বাশার তাদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন।
সাক্ষাৎকালে রাষ্ট্রদূত সদ্য আগত বাংলাদেশি পেশাজীবীদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন। এসময় রাষ্ট্রদূত লিবিয়ায় নিয়োগপ্রাপ্ত সব ডাক্তার-নার্সকে স্বাগত জানান। তিনি তাদের দক্ষতা ও পেশাদারিত্বের সঙ্গে কাজ করে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করার আহ্বান জানান। রাষ্ট্রদূত আগত পেশাজীবীদের লিবিয়ার সার্বিক পরিস্থিতি সম্পর্কে অবহিত করেন এবং প্রয়োজনীয় সতর্কতা অবলম্বনের পরামর্শ দেন। এ ছাড়া ভাষাগত দক্ষতাসহ অন্যান্য চ্যালেঞ্জ ধৈর্যের সঙ্গে মোকাবিলা করার জন্য তিনি তাদের অনুরোধ জানান।
বৈঠকে রাষ্ট্রদূত লিবিয়ার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন বিভিন্ন হাসপাতালে প্রথম পর্যায়ে নিয়োগপ্রাপ্ত বাংলাদেশি ডাক্তার-নার্সদের বেতন-ভাতা ও অন্যান্য সুযোগ-সুবিধা নিশ্চিত করতে দূতাবাসের নেওয়া বিভিন্ন পদক্ষেপ সম্পর্কে অবহিত করেন। দূতাবাস বর্তমানে লিবিয়ার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এবং বিভিন্ন হাসপাতালসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সঙ্গে নিরবচ্ছিন্নভাবে কাজ করে যাচ্ছে বলে জানান রাষ্ট্রদূত। রাষ্ট্রদূত নতুন আগত পেশাজীবীদের লিবিয়ায় কর্মকালের সফলতা কামনা করেন এবং যেকোনো সমস্যা সমাধানে দূতাবাসের পূর্ণ সহযোগিতার আশ্বাস দেন।