ঢাকা , বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ৪ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

নির্মাণ কাজে টেকসই উপকরণ ব্যবহার করার আহ্বান ইটের বদলে কংক্রিট ব্লকের ওপর জোর ভূমিমন্ত্রীর

  • ডেস্ক :
  • আপডেট সময় ০৭:৪০ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
  • 21

অনলাইন ডেস্ক :  নির্মাণ কাজে টেকসই উপকরণ ব্যবহার করার আহ্বান জানিয়েছেন ভূমিমন্ত্রী নারায়ন চন্দ্র চন্দ। তিনি বলেন, আমাদের এমন উপকরণ ব্যবহার করা উচিত যা কেবল নির্মাণের প্রয়োজনীয়তা পূরণ করে না বরং পরিবেশ সংরক্ষণেও অবদান রাখে। এক্ষেত্রে ইটের বদলে কংক্রিট ব্লক নির্মাণ শিল্পের ওপর জোর দিয়েছেন তিনি।

ভূমিমন্ত্রী বৃহস্পতিবার পরিবেশ অধিদপ্তরের খুলনা বিভাগীয় কার্যালয়ের সভাকক্ষে কংক্রিট ব্লক উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে এক মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন। এ সময় খুলনা বিভাগের অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (রাজস্ব) মো. ফিরোজ শাহ সভাপতি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।

মতবিনিময় সভায় ভূমি মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাসহ পরিবেশ অধিদপ্তরের খুলনা বিভাগীয় পরিচালকসহ অন্যান্য কর্মকর্তা, খুলনার সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তর, গণপূর্ত অধিদপ্তর ও স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলী, খুলনা বিভাগীয় অঞ্চলের কংক্রিট ব্লক উৎপাদন সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ী ও উদ্যোক্তা এবং এনজিও কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। সভায় উদ্যোক্তা ও প্রকৌশলীরা কংক্রিট ব্লক নিয়ে তাদের অভিজ্ঞতা এবং অর্থনৈতিক সম্ভাব্যতা বিষয়ে মতামত ব্যক্ত করেন।

ভূমিমন্ত্রী বলেন, কংক্রিট ব্লক নির্মাণ শিল্পে এক আধুনিক প্রযুক্তি। এই ব্লকগুলো ইটের তুলনায় বর্ধিত স্থায়িত্ব, উন্নত নিরোধক এবং পরিবেশগত ক্ষতিকর প্রভাব হ্রাস করে। মন্ত্রী এ সময় অংশীজনদের নির্মাণ প্রকল্পগুলোতে কংক্রিট ব্লক ব্যবহারের ক্ষেত্র অন্বেষণ করতে উৎসাহিত করেন।

ভূমিমন্ত্রী এ সময় কংক্রিট ব্লক উৎপাদন খাতে উদ্ভাবন চালানোর ক্ষেত্রে উদ্যোক্তা ও প্রকৌশলীদের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকার ওপর জোর দেন। তিনি পারস্পরিক সহযোগিতা বৃদ্ধি, সহযোগিতা এবং সম্মিলিত অগ্রগতির লক্ষ্যে কংক্রিট ব্লক উৎপাদনকারী সংশ্লিষ্ট বাণিজ্য অ্যাসোসিয়েশন কিংবা ফেডারেশন প্রতিষ্ঠার জন্য সমন্বিত প্রচেষ্টার আহ্বান জানান।

সভায় পরিবেশ অধিদপ্তর থেকে জানানো হয়, ইটভাটাগুলো বায়ুদূষণের এক বড় উৎস। এ ছাড়া ইটভাটায় যথেচ্ছভাবে কৃষিজমির উপরিভাগের মাটি ব্যবহার করা হচ্ছে। এ কারণে ফসলি জমির উর্বরতা শক্তি নষ্ট হয়ে খাদ্য নিরাপত্তা হুমকির মুখে পড়তে পারে। কংক্রিট ব্লক ব্যবহারে এই ঝুঁকি অনেক কমে আসবে বলে পরিবেশ অধিদপ্তর থেকে জানানো হয়।

ট্যাগস
জনপ্রিয় সংবাদ

দাওয়াত না পেয়ে বিয়ে বাড়িতে হামলা : অভিযুক্ত মেম্বার জেলহাজতে

নির্মাণ কাজে টেকসই উপকরণ ব্যবহার করার আহ্বান ইটের বদলে কংক্রিট ব্লকের ওপর জোর ভূমিমন্ত্রীর

আপডেট সময় ০৭:৪০ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

অনলাইন ডেস্ক :  নির্মাণ কাজে টেকসই উপকরণ ব্যবহার করার আহ্বান জানিয়েছেন ভূমিমন্ত্রী নারায়ন চন্দ্র চন্দ। তিনি বলেন, আমাদের এমন উপকরণ ব্যবহার করা উচিত যা কেবল নির্মাণের প্রয়োজনীয়তা পূরণ করে না বরং পরিবেশ সংরক্ষণেও অবদান রাখে। এক্ষেত্রে ইটের বদলে কংক্রিট ব্লক নির্মাণ শিল্পের ওপর জোর দিয়েছেন তিনি।

ভূমিমন্ত্রী বৃহস্পতিবার পরিবেশ অধিদপ্তরের খুলনা বিভাগীয় কার্যালয়ের সভাকক্ষে কংক্রিট ব্লক উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে এক মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন। এ সময় খুলনা বিভাগের অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (রাজস্ব) মো. ফিরোজ শাহ সভাপতি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।

মতবিনিময় সভায় ভূমি মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাসহ পরিবেশ অধিদপ্তরের খুলনা বিভাগীয় পরিচালকসহ অন্যান্য কর্মকর্তা, খুলনার সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তর, গণপূর্ত অধিদপ্তর ও স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলী, খুলনা বিভাগীয় অঞ্চলের কংক্রিট ব্লক উৎপাদন সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ী ও উদ্যোক্তা এবং এনজিও কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। সভায় উদ্যোক্তা ও প্রকৌশলীরা কংক্রিট ব্লক নিয়ে তাদের অভিজ্ঞতা এবং অর্থনৈতিক সম্ভাব্যতা বিষয়ে মতামত ব্যক্ত করেন।

ভূমিমন্ত্রী বলেন, কংক্রিট ব্লক নির্মাণ শিল্পে এক আধুনিক প্রযুক্তি। এই ব্লকগুলো ইটের তুলনায় বর্ধিত স্থায়িত্ব, উন্নত নিরোধক এবং পরিবেশগত ক্ষতিকর প্রভাব হ্রাস করে। মন্ত্রী এ সময় অংশীজনদের নির্মাণ প্রকল্পগুলোতে কংক্রিট ব্লক ব্যবহারের ক্ষেত্র অন্বেষণ করতে উৎসাহিত করেন।

ভূমিমন্ত্রী এ সময় কংক্রিট ব্লক উৎপাদন খাতে উদ্ভাবন চালানোর ক্ষেত্রে উদ্যোক্তা ও প্রকৌশলীদের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকার ওপর জোর দেন। তিনি পারস্পরিক সহযোগিতা বৃদ্ধি, সহযোগিতা এবং সম্মিলিত অগ্রগতির লক্ষ্যে কংক্রিট ব্লক উৎপাদনকারী সংশ্লিষ্ট বাণিজ্য অ্যাসোসিয়েশন কিংবা ফেডারেশন প্রতিষ্ঠার জন্য সমন্বিত প্রচেষ্টার আহ্বান জানান।

সভায় পরিবেশ অধিদপ্তর থেকে জানানো হয়, ইটভাটাগুলো বায়ুদূষণের এক বড় উৎস। এ ছাড়া ইটভাটায় যথেচ্ছভাবে কৃষিজমির উপরিভাগের মাটি ব্যবহার করা হচ্ছে। এ কারণে ফসলি জমির উর্বরতা শক্তি নষ্ট হয়ে খাদ্য নিরাপত্তা হুমকির মুখে পড়তে পারে। কংক্রিট ব্লক ব্যবহারে এই ঝুঁকি অনেক কমে আসবে বলে পরিবেশ অধিদপ্তর থেকে জানানো হয়।